advertisement
আপনি দেখছেন

দেশে মরণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় কম। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১২ হাজার ১২৪। একই সময়ে আরো ২৬১ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা আগের দিনের তুলনায় অনেকটা কম। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৭৯ হাজার ৭৯৬।

 corona

আজ শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোভিড-১৯ সক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। দেশে করোনা শনাক্তের পর থেকে প্রতিদিনই পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টার আপডেট জানিয়েছে আসছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৩ হাজার ৬৮৭টি। আগের নমুনাসহ পরীক্ষা করা হয়েছে ৩ হাজার ৭৫৮টি। এর মধ্যে আরো ২৬১ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় অনেকটা কম। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছিল ৮৪৮ জন। এ নিয়ে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৭ লাখ ৭৯ হাজার ৭৯৬ জন। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৭ লাখ ২ হাজার ২৮৬টি।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি দেশে করোনায় সর্বনিম্ন তথা ২৯১ জন শনাক্ত হয়েছিল। তার প্রায় দুই মাস পর আজ শনাক্তের সংখ্যা কমে গেল। এ ছাড়া গত বছরের ১৭ এপ্রিল ২৬৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

cv sample test booth

এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে আরো ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা আগের দিনের তুলনায় কম। আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল। দেশে এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ মৃত্যু ১১২ জন, যা ছিল গত ১৯ এপ্রিল। এ নিয়ে দেশে মোট ১২ হাজার ১২৪ জনের মৃত্যু হলো। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১৭ জন পুরুষ এবং ৫ জন নারী। সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন। 

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৯৬৪ জন। এ পর্যন্ত দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ২১ হাজার ৪৩৫ জন।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৬ দশমিক ৯৫ শতাংশ। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২২ জনের মধ্যে ১৩ জনই ঢাকা বিভাগের। এ ছাড়া চট্টগ্রামে ৮ এবং খুলনায় ১ জন মারা গেছেন।