advertisement
আপনি দেখছেন

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপক হারে বেড়ে গেছে। ফলে হাসপাতালগুলোতে রোগীর স্থান সংকুলান হচ্ছে না। এ অবস্থায় অন্তত ৫টি করোনার ফিল্ড হাসপাতাল করার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এর একটি হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ)।

jahid malek health minister 9স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক

করোনা ডেডিকেটেড এই হাসপাতালটি হচ্ছে ১২০০ শয্যার। হাসপাতালটির নাম বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার নামে করা হবে বলে জানা গেছে। এখানে ৪ শতাধিক আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) এবং ৪ শতাধিক আইসিইউ সমতুল্য এইচডিও থাকবে বলে জানানো হয়েছে। সব মিলিয়ে হাসপাতালটি হবে বাংলাদেশের সর্বাধুনিক করোনা হাসপাতাল।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কনভেনশন সেন্টার পরিদর্শন শেষে আজ শনিবার এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলম, বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. এ কে এম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

bsmmu hospital shahbagবঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে হবে একটি ফিল্ড হাসপাতাল

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশের হাসপাতালগুলোতে শয্যার সংখ্যা বাড়ানোর নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ জন্য গতকাল প্রায় সারাদিন ঘুরে ঢাকা শহরের বিভিন্ন বিল্ডিং দেখেছি আমরা যে, এগুলোতে করোনা হাসপাতাল স্থাপন করা যায় কি না। পরে এই কনভেনশন হলটি বাছাই করা হয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, বিএসএমএমইউ’র এই বিল্ডিংটি ফাইভস্টার স্ট্যান্ডার্ডের একটি বিল্ডিং। এখানে প্রায় ১২০০ বেডের একটি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ব্যবস্থা করতে পারব আমরা। এটি হয়ে গেলে বাংলাদেশে সবচেয়ে ভালো এবং আধুনিক করোনা হাসপাতাল হবে বলে আমরা মনে করি। এখানে এয়ারকন্ডিশন ও পানিসহ সব ধরনের ফ্যাসিলিটি (সুযোগ-সুবিধা) রয়েছে। শুধু আমাদের অক্সিজেনের ব্যবস্থা করতে হবে। যত দ্রুত সময়ে সম্ভব আমাদের চেষ্টা থাকবে এই হাসপাতালটি চালু করার।

বাংলাদেশেও পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতিদিন প্রায় ১১ হাজার লোক নতুন করে ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হিসেবে শনাক্ত হচ্ছেন। এ ছাড়া প্রায় ২০০ মানুষ প্রতিদিন মৃত্যুবরণ করছেন। এ জন্য আমরা খুবই দুঃখিত।

মন্ত্রী আরো বলেন, এই মৃত্যু রোধ করার চেষ্টা করছি আমরা। একই সঙ্গে সংক্রমণের হারও কীভাবে কমিয়ে আনা যায়, সে চেষ্টাও চলছে। গত ১০ দিনের হিসাব করলে প্রায় ৯০ হাজার লোক ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে খুব শিগগিরই আরো প্রায় ৮ থেকে ১০ হাজার লোক স্বাস্থ্যসেবায় যুক্ত হবে।

এ সময় বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, এই করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালটির নাম হবে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার নামে। কনভেনশন সেন্টারের পঞ্চম তলায় এই হাসপাতালটি করা হবে।