advertisement
আপনি দেখছেন

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে সবশেষ হালনাগাদ তথ্য জানিয়েছে তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা। আজ বুধবার বোর্ডের পক্ষ থেকে একজন চিকিৎসক বিবিসি বাংলাকে জানান, তার লিভার বা যকৃতে জটিলতা দেখা দেয়ায় বিদেশে চিকিৎসার সুপারিশ করা হয়েছে।

khaleda zia in hospital 9হাসপাতালে খালেদা জিয়া, ফাইল ছবি

তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন জানান, খালেদা জিয়া যেসব শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন, তার মধ্যে রয়েছে- আর্থাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি ও হার্টের পুরোনো সমস্যা। তবে এর মধ্যে লিভারের জটিলতাই এখন মারাত্মক হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে অন্য সমস্যাগুলোর ক্ষেত্রে সেভাবে ওষুধ কাজ করছে না।

লিভারের একটি অপারেশন করা জরুরি, যার আধুনিক সুবিধা বাংলাদেশে নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ক্রনিক লিভারের কারণে তার পাকস্থলীতে কিছুটা রক্তক্ষরণ হয়েছে। এই অপরেশনের সুবিধা দেশে নেই। সে কারণেই বিদেশে নেয়ার সুপারিশ করেছে মেডিকেল বোর্ড। 

এই সুবিধা যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যসহ উন্নত বিভিন্ন দেশে রয়েছে জানিয়ে বলা হয়, এমন কোনো দেশে নিয়ে দ্রুত চিকিৎসা করানোর তাগিদ দিয়েছে মেডিকেল বোর্ড। খালেদা জিয়া গত ১৩ নভেম্বর থেকে ঢাকায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে সিসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।

এর আগে খালেদা জিয়াকে দেখে এসে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, তার চিকিৎসা বাংলাদেশে হওয়ার সুযোগ নেই। দুই-একদিনের মধ্যে তাকে বিদেশে পাঠানো দরকার। খালেদা জিয়া ক্রান্তিকালে আছেন, যেকোনো মুহূর্তে চলে যেতে পারেন। তাকে হত্যা করা হচ্ছে, সে জন্য আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও হুকুমের আসামি হবেন।

বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে গতকাল মঙ্গলবার আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের কাছে স্মারকলিপি দেয়া হয়। বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের একটি প্রতিনিধি দল তাতে দাবি করে, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর বিদেশে চিকিৎসায় আইনগত বাধা নেই।

তার আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে স্মারকলিপি দেয়া হয় গত ২১ নভেম্বর। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ৫টি দলের পক্ষ থেকে শীর্ষ নেতারা সচিবালয়ে গিয়ে স্মারকলিপিটি হস্তান্তর করেন।

সম্প্রতি বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে সরকারের শরণাপন্ন হয়েছে দল ও পরিবার। অনুমতি না পেয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে রাষ্ট্রপতির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা। গত রোববার সংসদ ভবনের সামনে এক মানববন্ধন থেকে এমন দাবি জানান তারা। একই দাবিতে দলটির সাবেক সংসদ সদস্যরাও কর্মসূচি দিয়েছেন। আজ ৮ দিনের কর্মসূচিও ঘোষণা করেছে বিএনপি।

এদিকে, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলে আসছেন, নির্বাহী আদেশে খালেদা জিয়া মুক্ত অবস্থায় দেশে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আইন অনুযায়ী, তার বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ নেই। তবে সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে বলেও সবশেষ জানিয়েছেন তিনি।