advertisement
আপনি পড়ছেন

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে সরগরম দেশের রাজনীতি। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর অনুমতি দিতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে আন্দোলন করে আসছে বিএনপি। সরকারের পক্ষ থেকে বরাবরই সেই দাবি নাকচ করা হয়েছে। আজ সোমবারও (২৯ নভেম্বর) পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার সুযোগ নেই।

abdul momen foreign minister bdপররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন

বিষয়টি নিয়ে যখন দেশে-বিদেশে আলোচনা হচ্ছে, তখন সরকারের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের ব্রিফ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। সরকারের অবস্থান তুলে ধরে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে সরকার আন্তরিক। কিন্তু তিনি যেহেতু একটি আইনি প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছেন, তাই এ অবস্থায় বিদেশে যাওয়ার সুযোগ নেই।

অবশ্য এর আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, খালেদা জিয়া একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। সে হিসেবে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইতে পারেন। যদি রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করে দেন তাহলে তিনি বিদেশ যেতে পারবেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ নভেম্বর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর এন্ডোসকপি করার কারণে শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হলে তাকে স্থানান্তর করা হয় করোনারি কেয়ার ইউনিট তথা সিসিইউতে। এখনও তার শারীরিক অবস্থার তেমন কোনো উন্নতি নেই।

গতকাল রোববার এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানিয়েছে খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন লিভার সিরোসিসে ভুগছেন। এই সমস্যার দ্রুত সমাধান না হওয়া পর্যন্ত মৃত্যুর ঝুঁকিতে রয়েছেন তিনি। তাই যত দ্রুত সম্ভব তাকে ইউরোপ-আমেরিকায় পাঠানোর সুপারিশ করেছেন চিকিৎসকরা।