advertisement
আপনি পড়ছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল বাংলাদেশে আগমনী ভিসা তথা ভিসা অন-অ্যারাইভাল। তবে দীর্ঘদিন পরে হলেও আবার চার ক্যাটাগরিতে চালু হলো ভিসা অন-অ্যারাইভাল।

on arrival visa bangladeshবাংলাদেশে ৪ ক্যাটাগরিতে অন-অ্যারাইভাল ভিসা চালু, ফাইল ছবি

জানা যায়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষাসেবা বিভাগ থেকে গত বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ৪টি ক্যাটাগরিতে অন-অ্যারাইভাল ভিসা চালুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্পেশাল ব্র্যাঞ্চের অতিরিক্ত মহাপুলিশ পরিদর্শকের কাছে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপসচিব তরফদার মাহমুদুর রহমান স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, করোনাভাইরাসের বিদ্যমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে ৪ ক্যাটাগরির ব্যক্তিদের জন্য অন-অ্যারাইভাল ভিসা প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। ক্যাটাগরিগুলো হলো—

on arrival visa bangladesh innerবাংলাদেশে ৪ ক্যাটাগরিতে অন-অ্যারাইভাল ভিসা চালু, ফাইল ছবি

১. বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বিদেশি নাগরিক এবং তাদের স্বামী, স্ত্রী বা সন্তান। ২. কূটনৈতিক ও অফিসিয়াল পাসপোর্টধারী বিদেশি নাগরিক। ৩. বিদেশি বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ী। ৪. এমন বিদেশি নাগরিক যারা বাংলাদেশ সরকারের আমন্ত্রণে কোনো সরকারি সভা, সেমিনার, কনফারেন্স, কিংবা অন্য কোনো ইভেন্টে অংশগ্রহণের জন্য আসবেন।

অবশ্য চিঠিতে এটাও উল্লেখ করা হয়েছে যে, বিশেষ বিবেচনায় প্রয়োজনবোধে সুরক্ষাসেবা বিভাগের পূর্বানুমতি নিয়ে নির্দিষ্ট কোনো ভ্রমণকারীকে অন-অ্যারাইভাল ভিসা দেওয়া যেতে পারে।

এতে আরো বলা হয়, অন-অ্যারাইভাল ভিসায় আগত যাত্রীদের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্ধারিত কোভিড-১৯ বিষয়ক প্রটোকল অনুসরণ করতে হবে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের অংশ হিসেবে গত বছরের ১৫ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত প্রথমে সব ধরনের অন-অ্যারাইভাল ভিসা স্থগিত ঘোষণা করে বাংলাদেশ সরকার। এরপর করোনা পরিস্থিতির অবনতির সঙ্গে সঙ্গে বিমান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় এবং ধাপে ধাপে তা বাড়তে থাকে।