advertisement
আপনি পড়ছেন

দেশে আনুষ্ঠানিকভাবে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকার বুস্টার তথা তৃতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের কিছু হাসপাতালে স্বল্প পরিসরে এই কার্যক্রম শুরু হয়। দুই-তিন দিন পর থেকে পুরোদমে এটি শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। এই ডোজ নেওয়ার জন্য নতুন করে নিবন্ধনের প্রয়োজন নেই।

booster dose cv vacc bangladeshদেশে বুস্টার ডোজের প্রয়োগ শুরু হয়েছে

তথ্যটি জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার নাজমুল ইসলাম। তিনি বলেন, করোনা টিকার জন্য আগে করা নিবন্ধন থেকেই বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে। তবে সবাইকে নয়, আপাতত বুস্টার দেওয়া হবে নির্দিষ্ট শ্রেণির মানুষকে। যারা পাওয়ার যোগ্য, সরকারের পক্ষ থেকে তাদের মোবাইলে এসএমএস পাঠানো হবে।

জানা গেছে, আজ মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক কোম্পানি ফাইজারের তৈরি করা টিকা দিয়ে বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়েছে। যাদের বয়স ৬০ বছরের বেশি এবং সম্মুখ সারির করোনা যোদ্ধারা আগে করোনা টিকার এই বুস্টার ডোজ পাচ্ছেন। যারা দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন এবং টিকা দেওয়ার পর ৬ মাস অতিবাহিত হয়েছে, বুস্টার ডোজ আপাতত তাদেরকেই দেওয়া হচ্ছে।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছিলেন, বুস্টার ডোজের এই টিকা কার্যক্রম চলমান থাকবে। টিকার কোনো অভাব হবে না। আপাতত বুস্টার হিসেবে ফাইজারের টিকাই ব্যবহার করা হবে। কারণ এটিকে অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ফাইজারের কয়েক লাখ টিকা আমাদের হাতে রয়েছে। আগামী মাসে আসছে আরো ২ কোটি টিকা। হাতে আছে আরো ৫ কোটি।