advertisement
আপনি পড়ছেন

ঘটনাটি গত ২৯ এপ্রিলের। রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার ১০ নম্বর সেক্টর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে নামাজ পড়তে যায় স্থানীয় এক ব্যক্তি। যখন অজু করতে যান, ঠিক তখন তার মোবাইলটি চুরি হয়ে যায়। অনেক চেষ্টা করেও খুঁজে না পেয়ে ঘটনার ১৫ দিন পর গত ১৬ মে উত্তরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন তিনি।

mobile thiefমোবাইল চোর চক্র

ঢাকা মহানগর পুলিশের ( ডিএমপি) গোয়েন্দা উত্তরা বিভাগের উত্তরা জোনাল টিম ঘটনার ছায়া তদন্ত শুরু করে। টিম লিডার অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার বদরুজ্জামান জিল্লুর নেতৃত্বে ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করা হয়।

পরবর্তীতে প্রযুক্তির মাধ্যমে উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে সেই মোবাইল চোরসহ চক্রের ৮ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। এ সময় উদ্ধার করা হয় বিপুল পরিমাণ চোরাই মোবাইল।

dmp logoঢাকা মহানগর পুলিশ

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মনির হোসেন, মো. মোতাহার হোসেন, মো. সুরুজ হোসেন, মো. শাহজালাল, মো. মেহেদী হাসান, কুমার সানি, মো হৃদয় ও  শামীম ওসমান। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৫৮টি মোবাইল সেট, একটি ল্যাপটপ এবং নগদ ১ লাখ ১৮ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, গ্রেপ্তার করা ৮ জনই সংঘবদ্ধ মোবাইল চোর চক্রের সদস্য। তারা চুরির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, শুধু মোবাইল চোরকে নয়, চোরাই মোবাইল বিক্রয়কারীদেরও গ্রেপ্তার করা হবে। কারণ এই ব্যবসায়ীদের জন্যই চোরাই মোবাইল বিক্রি করতে পারে চক্রটি। যারা চোরাই মোবাইল বিক্রি করবে তাদেরকেও প্রচলিত আইনের আওতায় গ্রেপ্তার করা হবে।