advertisement
আপনি দেখছেন

স্বামীকে আটকে রেখে নববধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদ, অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠেছে সিলেটের এমসি কলেজ। আজ শনিবার দুপুর থেকে ক্যাম্পাসের কাছে সিলেট-তামাবিল সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

uttal mc collegউত্তাল এমসি কলেজ

এ সময় ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের অনতিবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দ্রুত বিচার আইনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে নানা ধরনের স্লোগান দিতে দেখা যায়। তাদের এ আন্দোলন শান্তিপূর্ণ থাকবে বলেও জানানো হয়।

এদিকে, কলেজের হোস্টেল সুপার জামাল উদ্দিন আজ দুপুর ১২টার মধ্যে ছাত্রাবাস ছাড়তে নির্দেশ দেয়ায় শিক্ষার্থীরা সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা রাতে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই নববধূ।

অভিযোগ উঠেছে, এমসি কলেজের সামনে স্বামীকে আটকে রেখে তার সামনেই নববধূকে টেনেহিঁচড়ে ছাত্রাবাসে 'ছাত্রলীগের দখল করা একটি কক্ষের' সামনে ধর্ষণ করেন কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী। এ ঘটনায় সংগঠনটির ৬ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৩ জনসহ মোট ৯ জনের নামে শাহপরান থানায় একটি মামলা করেন ভুক্তভোগীর স্বামী।

mc college sylhetঅভিযুক্তদের কয়েকজন

শুক্রবার রাতে দায়ের করা ওই মামলার আসামিরা হলেন- এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা এম সাইফুর রহমান এবং ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি। এ ছাড়া অভিযুক্ত ৬ জনের মধ্যে রয়েছেন তারেক আহমদ, অর্জুন লস্কর, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান মাছুম। এর মধ্যে তারেক ও রবিউল বহিরাগত এবং বাকি চার জন এমসি কলেজের শিক্ষার্থী।

এদের মধ্যে সাইফুর রহমানের বাড়ি সিলেটের বালাগঞ্জে। এ ছাড়া রনি হবিগঞ্জ, তারেক সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর, অর্জুন জকিগঞ্জ, রবিউল সুনামগঞ্জের দিরাই এবং মাছুমের বাড়ি সিলেট সদর উপজেলায়।

sheikh mujib 2020