advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে গত ১০ জানুয়ারি ১১ দফা নির্দেশনা জারি করে সরকার। এরপরই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হতে পারে- এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এবার শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির বরাত দিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা ছড়িয়ে পড়েছে।

ministry of educationশিক্ষা মন্ত্রণালয়, ফাইল ছবি

এ নিয়ে আজ শনিবার একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তাতে বলা হয়েছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়টি একটি গুজব। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত কোনো বক্তব্য দেননি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

করোনা পরিস্থিতি নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মহামারি নিয়ে সরকারের জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে সবশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করা হবে। সেই সভার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

dr dipu moniডা. দীপু মনি, ফাইল ছবি

বর্তমানে শিক্ষার্থীদের টিকাদান নিশ্চিত করার ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে আরো বলা হয়েছে, কোনো ধরনের গুজবে কান দেবেন না। আগাম তথ্য ছড়ানো থেকে বিরত থাকতে সবার প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এর আগে করোনার সংক্রমণ বাড়লেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখনই বন্ধ করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। গত সোমবার স্বাস্থ্যবিধি ও টিকা কার্যক্রমের ওপর জোর দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু রাখা হবে বলে জানান তিনি।

সম্প্রতি নতুন করে করোনার সংক্রমণ বেড়ে গেলে স্কুলগুলো চালু রাখা সম্ভব নাও হতে পারে বলে মন্তব্য করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে জন্য অনলাইন শিক্ষা প্রত্যেক ঘরে পৌঁছানোর ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন তিনি। তার প্রেক্ষিতে পরে এক অনুষ্ঠানে ‘প্রয়োজনে ক্লাস বন্ধ করে দেয়ার’ কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়, প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ওই বছরের ১৮ মার্চ। সংক্রমণ বাড়তে থাকলে তা নিয়ন্ত্রণে একই বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পরিস্থিতি বিবেচনায় ধাপে ধাপে বাড়ানো হয় সেই ছুটির মেয়াদ, যা শেষ হয় গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর।