advertisement
আপনি দেখছেন

আল জাজিরার প্রামাণ্যচিত্রে সাক্ষাৎকার দেওয়া সেই বাংলাদেশি যুবক মো. রাহয়ান কবিরকে গ্রেপ্তার করেছে মালয়েশিয়ার পুলিশ। তাকে শিগগিরই দেশে ফেরত পাঠানো হবে। পাশাপাশি তাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে, যাতে তিনি আর কখনোই দেশটিতে ফেরত যেতে না পারেন।

raihan kabirআল জাজিরার প্রামাণ্য চিত্রে সাক্ষাৎকার দেওয়া বাংলাদেশি যুবক রায়হান কবির

আজ শনিবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানায় মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক খায়রুল দায়াইমি দাউদ। মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টার এ খবর প্রকাশ করেছে।

বিবৃতিতে খায়রুল দায়াইমি দাউদ বলেন, বাংলাদেশি যুবক রায়হান কবিরকে গ্রেপ্তার করার জন্য বেশ কিছুদিন ধরে গোয়েন্দা তৎপরতা চালায় মালয়েশিয়ার পুলিশ। টানা দুই সপ্তাহ পালিয়ে থাকার পর অবশেষে গতকাল শুক্রবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে শিগগিরই বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। পাশাপাশি সে যাতে আর কখনোই মালয়েশিয়ায় ফিরে আসতে না পারে তাই তাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে।

সম্প্রতি কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার একটি প্রামাণ্যচিত্রে মালয়েশিয়ায় থাকা অভিবাসীদের নানা সমস্যার কথা তুলে ধরেন ২৫ বছর বয়সী বাংলাদেশি অভিবাসী যুবক রায়হান কবির। 'লকড আপ ইন মালয়েশিয়া’স লকডাউন' শিরোনামে প্রচারিত ২৬ মিনিটের ওই প্রামাণ্যচিত্রের ৫ মিনিটের দিকে তাকে কথা বলতে দেখা যায়।

the star newsমালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টারের প্রতিবেদন

প্রামাণ্যচিত্রে রায়হান কবির জানান, তিনি মালয়েশিয়ার চোয়াক জেলায় থাকেন। এ সময় তিনি আল জাজিরার ওই প্রতিবেদককে ভিডিওর মাধ্যমে মালয়েশিয়ার প্রশাসনের কিছু পদক্ষেপের দৃশ্য দেখান। যেখানে দেখা যায়, ট্রাকে করে প্রায় ৬০০ অভিবাসীকে অন্য কোথাও নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

রায়হান ওই প্রতিবেদকের কাছে অভিযোগ করে বলেন, মালয়েশিয়ার প্রশাসন তাদের ফাঁদে ফেলেছে। ট্রাকে করে নিয়ে যাওয়া ওই অভিবাসীর কোনো সন্ত্রাসী বা খুনি নয়। শুধু তাদের বৈধ কাগজপত্র নেই। তাদেরকে খাবার, ওষুধসহ বিভিন্ন জিনিস দিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কেউই বুঝতে পারেনি তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই প্রামাণ্য চিত্রে শুধু রায়হান কবিরই নন, আরো অনেক দেশের অভিবাসী নিজেদের সমস্যার কথা তুলে ধরেন।

আল জাজিরার ইউটিউব চ্যানেলে ওই প্রামাণ্যচিত্রটি প্রকাশ হওয়ার পর মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষের এমন আচরণ নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। তবে এ অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছে মালয়েশিয়ার সরকার।

sheikh mujib 2020