advertisement
আপনি দেখছেন

অবশেষে মারা গেছেন টার্কিশ এয়ারলাইন্সের সেই বাংলাদেশি যাত্রী দেলোয়ারা বেগম। আজ বৃহস্পতিবার কানাডার কুইবেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫৭ বছর। তবে ঠিক কী কারণে তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন তা জানা যায়নি।

turkish airlinceটার্কিশ এয়ারলাইন্স- ফাইল ছবি

দেলোয়ারা বেগমের মৃত্যুর খবর তার পরিবারের সদস্যদের জানানো হয়েছে। তার স্বামী ও ছেলে-মেয়ে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। সেখানে তাদের আরো আত্মীয়-স্বজন রয়েছে। তাদের গ্রামের বাড়ি বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলায়।

এর আগে গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ থেকে ৩৫০ জনের বেশি যাত্রী নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে যাওয়ার পথে কানাডার কুইবেক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট। ওই ফ্লাইটে থাকা দেলোয়ারা বেগম হঠাৎ শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় বিমানটি জরুরি অবতরণ করে। পরে তাকে সেখানকার কুইবেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো।

deloyara begumদেলোয়ারা বেগম। ছবি- সংগৃহীত

জানা যায়, টার্কিশ এয়ারলাইন্সের ওই ফ্লাইটটিতে করে মেয়েসহ বাংলাদেশ থেকে নিউইয়র্ক যাচ্ছিলেন শাহাজান সরকার ও তার স্ত্রী দেলোয়ারা বেগম। দীর্ঘ উড়ানের পর ফ্লাইটটি যখন নিউইয়র্কের কাছাকাছি পৌঁছে, তখন নিজের আসনে ঢলে পড়েন দেলোয়ারা বেগম। যাত্রীর অসুস্থতার খবর ককপিটে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই পাইলট জরুরি অবতরণের ঘোষণা দেন। আর এর কয়েক মিনিট পরই কানাডার কুইবেক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে ফ্লাইটটি।

ওই ফ্লাইটে থাকা এক যাত্রী জানিয়েছিলেন, ফ্লাইটটি কুইবেক বিমানবন্দরে অবতরণের সঙ্গে সঙ্গেই চিকিৎসক, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের ১৫ জনের একটি টিম দ্রুত সেখানে উপস্থিত হয়। এরপর তারা মুমূর্ষ অবস্থায় দেলোয়ারা বেগমকে অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে প্রায় তিন ঘণ্টা দেরিতে বাকি যাত্রীদের নিয়ে মঙ্গলবার রাত ১০টায় নিউইয়র্কের জেএফকে বিমানবন্দরে পৌঁছায় ফ্লাইটটি।

তিনি আরো জানান, ফ্লাইটটি নিউইয়র্কের কাছাকাছি পৌঁছতে যাত্রীরা জেএফকে বিমানবন্দরে নামার জন্য মানসিক প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। হঠাৎ পাইলটের পক্ষ থেকে জরুরি অবতরণের ঘোষণায় তাদের মধ্যে উৎকণ্ঠা দেখা দেয়। তিনি অনেকবার বিমানে ভ্রমণ করেছেন। কিন্তু এমন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি এই প্রথমবার হয়েছেন। একজন যাত্রীর জীবন সংকট মোকাবেলায় ফ্লাইট কর্তৃপক্ষ কীভাবে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেন তা দেখেছেন।