advertisement
আপনি দেখছেন

বিয়ের দিন কনের পালিয়ে যাওয়া বা নানা কারণে বিয়ে ভেঙ্গে যাওয়ার মতো ঘটনা মাঝে মধ্যেই ঘটে। তবে এবার ভারতের উত্তর প্রদেশে ঘটেছে এক অদ্ভুত ঘটনা। বৌভাতের রাতে শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়েছেন এক নববধূ।

bride hand picপ্রতীকী ছবি

এনডিটিভি জানায়, গত ৯ ডিসেম্বর বাদাউন জেলার চোটা পারা গ্রামের প্রবীণে সঙ্গে বিয়ে হয় আজমগড়ের মেয়ে রিয়ার। পরে শুক্রবার তাদের বৌভাতের অনুষ্ঠান করা হয়। ওইদিন রাতেই শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে নগদ অর্থ, স্বর্ণালঙ্কার ও মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যান ওই নববধূ।

পরদিন সকালে ঘুম ভাঙ্গলে প্রবীণের পরিবারের সদস্যরা ঘটনাটি বুঝতে পারেন এবং স্থানীয় থানায় অভিযোগ জানান। অভিযোগে বলা হয়, তাদের পরিবারে সদ্যবিবাহিত হয়ে আসা নববধূ রিয়া নগদ ৭০ হাজার রুপি, ৩ লাখ রুপি মূল্যের স্বর্ণালঙ্কার এবং মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে গেছেন।

প্রবীণের বাবা রাম লাডেটে জানান, ছেলের বিয়েতে তিনি প্রায় ৪ লাখ রুপির মতো খরচ করেছেন। এ বিয়ের ঘটকালী করেন টিংকু নামের এক ঘটক। কনেকে গয়না বানিয়ে দেওয়ার নাম করে ওই ঘটক তার কাছ থেকে বেশকিছু টাকাও নিয়েছেন। কিন্তু ঘটনার পর থেকে তাকেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এদিকে বৌভাতের রাতেই স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ায় কিছুটা হতাশ হয়ে পড়েছেন বর প্রবীণ। বিয়ের পর পরই এমন অদ্ভূত পরিস্থিতিতে পড়বেন তা তিনি স্বপ্নেও কল্পনা করেননি।

এ বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা জিতেন্দ্র কুমার শ্রীবাস্তব বলেন, ধারণা করা হচ্ছে সবকিছুর পিছনে ওই ঘটক টিংকুরই হাত রয়েছে। কারণ বিয়ের পর থেকে সে নববধূর সঙ্গে তার প্রবীণদের বাড়িতেই ছিল। তাই নববধূর সঙ্গে সঙ্গে ওই ঘটককেও খুঁজছে পুলিশ।