advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের দাপটে বিশ্ব অর্থনীতির অবস্থা টালমাটাল। এর সর্বগ্রাসী হানায় প্রায় সবাই অল্প-বিস্তর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। লাখ-লাখ মানুষ চাকরি হারিয়েছেন, বেতনও কমেছে লাখ-লাখ মানুষের। এমন সময় যদি জানা যায়, কোনো ভিখারির মাসিক আয় ৮৫ হাজার টাকা, তাহলে অনেকেই হয়তো হতবাক না হয়ে পারবেন না। শুধু তাই নয় তার দেড় কোটি টাকা মূল্যের দুটি ফ্ল্যাটও আছে।

bharat jzainদুটি দামি ফ্লাটের মালিক ভিখারি ভরত জৈন

সম্প্রতিক ভারতে এমন একজন ধনী ভিখারির সন্ধান পাওয়া গেছে, যার মাসিক আয় ৮৫ হাজার টাকারও বেশি। দীর্ঘদিন ধরেই এ হারে আয় করে আসছেন ৪৯ বছর বয়সী ভরত জৈন । মুম্বইয়ের প্যারেল এলাকাতে ভিক্ষা করা এই ব্যক্তি তার টাকা আবার অপ্রয়োজনীয় কোনো খাতে ব্যয়ও করেননি।

জানা গেছে, ভরতের দু’টি অ্যাপার্টমেন্ট আছে। যার প্রতিটির মূল্য প্রায় ৮০ লাখ টাকা। অর্থাৎ দুটি ফ্ল্যাটের মুল্য দাড়ায় দেড় কোটি টাকারও বেশি। তার একটি দোকানও আছে। এ দোকান থেকে প্রাতিমাসে ভাড়া আসে ১০ হাজার টাকা। সবমিলিয়ে মা-ভাই, স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বেশ সুখেই আছেন ভরত জৈন।

এ তালিকায় কলকাতার লক্ষ্মী দাস নামের আরেকজন ভিখারিও রয়েছেন। জানা যায়, তিনি প্রায় ৫০ বছর ধরে এ কাজ করে যাচ্ছেন। ১৯৬৪ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে ভিক্ষা করতে শুরু করেন লক্ষ্মী। অর্থাৎ পঞ্চাশ বছরের বেশি ভিক্ষা করেই তিনি অর্থ সংগ্রহ করছেন। একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, তার মাসিক আয় ৩৫ হাজার টাকা। ব্যাংকেও তার বিপুল টাকা গচ্ছিত আছে বলে জানা যায়।

সূত্র: আনন্দবাজার