advertisement
আপনি দেখছেন

মহান আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে মানবজাতির হেদায়াতের জন্য সর্বশেষ আসমানি গ্রন্থ হলো আল কোরআন। এছাড়াও ছোট-বড় আরো ১০৩টি আসমানি গ্রন্থ পৃথিবীর বুকে মানুষকে মুক্তির পথ দেখাতে নাজিল করা হয়েছিলো। কোরআন হলো সর্বশেষ এবং পরিপূর্ণ জীবন বিধান। ইসলামের প্রাথমিক যুগে কোরআন শুনে, বুঝে, দাওয়াতে মুগ্ধ হয়ে অবিশ্বাসীরা ইসলামের সুশীতল ছায়ায় আশ্রয় গ্রহণ করেছিলো। 

the holy quran

রাসুল (সা.) এবং সাহাবিরা কোরআনের আয়াত বলে, শুনিয়ে, চিঠিতে লিখে অমুসলিমদের দাওয়াত দিয়েছেন। আজকের মতো তখন কোরআন এমন গ্রন্থবদ্ধ ছিলো না। সে সময় প্রায় সবাই কোরআনের উল্লেখযোগ্য ও প্রয়োজনীয় অংশ মুখস্ত রাখতেন। পরিপূর্ণ কোরআনের হাফেজের সংখ্যাও তখনকার দিনে কম ছিলো না।

আল্লাহ তায়ালার অশেষ দয়ায় কোরআন আজ গ্রন্থাকারে পাওয়া যাচ্ছে। প্রশ্ন হলো, পবিত্র এ গ্রন্থ কি পড়ার জন্য, বোঝার জন্য কোনো অমুসলিমকে দেওয়া যাবে?

এ প্রশ্নের উত্তরে বিশেষজ্ঞ আলেমদের ফতোয়া হলো-

১. দাওয়াতের উদ্দেশ্যে অমুসলিমকে কোরআন পড়তে দেওয়া যাবে। সহি বুখারির বর্ণনায় এসেছে, ‘রাসুল (সা.) পারস্যের বাদশা হিরাক্লিয়াসকে কোরআনের আয়াত সংবলিত দাওয়াতি চিঠি পাঠিয়েছিলেন।’ এ হাদিসের ব্যাখ্যায় আল্লামা ইবনে হাজার আসকালানি (রহ.) বলেছেন, দাওয়াতের উদ্দেশ্যে অমুসলিমদের কোরআনের কপি পড়তে দেওয়া সম্পূর্ণ জায়েজ।

২. কোনো অমুসলিম যদি কোরআনের অবমাননা করবে বলে শঙ্কা হয়, তাহলে ওই অমুসলিমকে কোরআন পড়তে দেওয়া জায়েজ নেই। বুখারির আরেক হাদিসে রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা শত্রুর এলাকায় কোরআন নিয়ে যেও না। কেননা, শত্রুরা কোরআন অবমাননা করতে পারে।’

al quran

এ হাদিসের আলোকে মুহাদ্দিসগণ বলেছেন, কোরআনের অবমাননা হবে এ ভয় থাকলে অমুসলিমকে কোরআন তো দেওয়া যাবেই না, এমনকি ওদের সীমানায়ও কোরআনের কপি বহন করে নেওয়া যাবে না।

৩. একদল আলেম বলেছেন, অমুসলিমকে কোরআন দেওয়ার সময় তাকে বলে দিতে হবে, সে যেন এটি পড়ার আগে গোসল করে নেয়। হযরত ওমর (রা.) যখন অমুসলিম ছিলেন, তিনি তার বোনের কাছে কোরআনের কপি চাইলে তার বোন তাকে গোসল করে আসতে বলেন।

কিন্তু অধিকাংশ আলেম বলেন, এটা দুর্বল যুক্তি। বিশেষত ওমরের (রা.) ইসলাম গ্রহণের এ ঘটনা দুর্বল সনদে বর্ণিত হয়েছে। তাছাড়া রাসুল (সা.) থেকে সরাসরি এমন কোনো নির্দেশ নেই যে- কোনো অমুসলিমকে কোরআন পড়তে দিলে তাকে যেন গোসল করতে বলা হয়। সুতরাং এটা বলে দেওয়া দায়ির জন্য আবশ্যক নয়।

sheikh mujib 2020