advertisement
আপনি দেখছেন

আগেকার দিনের মায়েরা পুষ্টির জন্য সন্তানকে দিতেন ফলের রস। এখন বাচ্চাকে সুস্থ থাকতে দেওয়া হয় রকমারি হেলথ ড্রিংকস। এতে কি বাচ্চা আদৌ সুস্থ থাকে? না পুষ্ট হয়! সমীক্ষা বলছে, নানা রকমের ফল শুধু খেতেই সুস্বাদু নয়, এগুলোর মধ্যে থাকে ফাইবার আর ভিটামিন, যা হেলথ ড্রিংকসে থাকে না। তাই ফলের রসের মতো উপকারী বাচ্চার পক্ষে আর কিছুই হতে পারে না।

fruit juiceফলের জুস

‘জার্নাল অফ দ্য আমেরিকান কলেজ অফ নিউট্রিশন’ -এর জুলাই সংখ্যার প্রতিবেদনে বলা হয়, ফলের রসে অনেক সময় ফাইবারের অভাব থাকলেও ফাইটোকেমিক্যাল থাকে প্রচুর। এতে চিনি ও স্যাচুরেটেড ফ্যাটও থাকে কম। বরং বেশি পরিমাণে থাকে ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, ভিটামিন সি। তাই হেলথ ড্রিংকসের থেকে অনেক গুণ ভালো ফলের রস।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, অনেকেই বলেন গোটা ফল চিবিয়ে খাওয়ার মতো উপকার ফলের রসে পাওয়া যায় না। কিন্তু এই কথা ঠিক নয়। গোটা ফল খেলে ফাইবার মেলে। এটুকুই বাড়তি পাওনা। বাকি সমস্তটাই থাকে ফলের রসে। তাই বাচ্চার ডায়েটে ফলের রস না রাখা মানে আখেরে তার ক্ষতি করা। হেলথ ড্রিংকস কখনোই ফলের রসের উপযোগী হতে পারে না।

প্রসঙ্গত, গত দশক ধরে চটকদার বিজ্ঞাপনের ফাঁদে পরে বিশ্বে বাচ্চাদের ফলের রস খাওয়ানোর চেয়ে বিভিন্ন হেলথ ড্রিংকস খাওয়াচ্ছেন বাব-মা। একমাত্র যুক্তরাষ্ট্রের শিশুরা এখনও নিয়মিত ফল খায়। ফলে, তারা অন্য দেশের শিশুদের তুলনায় অনেক বেশি পুষ্ট এবং স্বাস্থ্যবান। রোগেও ভোগে কম। সূত্র: এনডিটিভি বাংলা