advertisement
আপনি দেখছেন

গ্রীষ্মকালীন ফল হলেও এখন সারা বছরই পাওয়া যায় আমড়া। দেশি ও বিদেশি দুই জাতের আমড়াই মেলে বাংলাদেশে। আচারসহ নানাভাবে এটি খাওয়ার প্রচলন রয়েছে। তবে যেভাবেই খাওয়া হোক আমড়া নানা গুণে গুণান্বিত একটি ফল। চলুন এর কয়েকটি গুণ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক-

amra

নিয়মিত আমড়া খেলে ডাক্তার ছাড়াই অনেক রোগ ভালো হওয়ার কথা বলেছেন ইউনানি চিকিৎসকরা। শুধু তাই নয়, আমড়ার ভিটামিন সি শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং দেহে নতুন রোগ বাসা বাঁধতে দেয় না।

আমড়ার পুষ্টিগুণ

প্রচুর ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই ফলটির অসাধারণ পুষ্টিগুণ রয়েছে। প্রতি ১০০ গ্রাম আমড়ায় আছে শর্করা ১৫ গ্রাম, আমিষ ১.১ গ্রাম, চর্বি ০.১ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৫৫ মিলি গ্রাম, আয়রন ৩.৯ মিলি গ্রাম, ক্যারোটিন ৮০০ মাইক্রো গ্রাম, ভিটামিন বি ১০.২৮ মিলি গ্রাম, ভিটামিন সি ৯২ মিলি গ্রাম, অন্যান্য খনিজ পদার্থ ০.৬ মিলি গ্রাম এবং খাদ্য শক্তি ৬৬ কিলোক্যালরি।

৫০ শতাংশ ভিটামিস সির অভাব পূরণ

সবুজ ফল মানেই প্রচুর ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল। তবে আমড়ায় তুলনামূলক বেশিই ভিটামিন সি রয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, আমড়াকে ভিটামিস সির অন্যতম উৎস বললেও ভুল হবে না। প্রতিদিন নিয়ম করে একটি আমড়া খেলে শতকরা ৫০ ভাগ ভিটামিন সির অভাব পূরণ হয়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা ছাড়াও আমড়া কোলাজেনের বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। যা স্কিন, লিগামেন্ট, টেন্ডন ও কার্টিলেজকে সুস্থ রাখে।

রক্তের অসুখকে বিদায় করে

যারা রক্তস্বল্পতাজনিত অসুখে ভুগছেন তাদের জন্য আদর্শ পথ্য হলো আমড়া। প্রচুর আয়রন থাকায় আমড়া শরীরের রক্তস্বল্পতা আস্তে আস্তে কমিয়ে আনে। নিয়মিত আমড়া খেলে রক্তের অসুখ ভালো হয়ে যায়। শুধু তাই নয়, রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রাও সঠিক পরিমাণে রাখতে সাহয্য করে আমড়া।

ত্বকের অসুখেও আমড়ার জাদু

ত্বক নিয়ে সমস্যায় ভোগেন না এমন মানুষ খুব কমই আছেন। ব্রণ, দাগ, ফুসকুরি, কালচে দেখানোসহ ত্বকের নানা সমস্যার জাদুকরি সমাধান আমড়া। আমড়ায় থাকা ভিটামিন সি ত্বককে করে লাবণ্যময়-উজ্জল। শুধু তাই নয়, ব্রণসহ ত্বকের যেকোনো সমস্যা নিয়মিত আমড়া খেলে কমে যাবে। কাটা-ছেড়া শুকাতেও আমড়া কাজ করে জাদুর মতোই।

হজমের সমস্যায় আমড়া

আমড়ায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণ দ্রবণীয় ফাইবার। যা হজমজনিত যেকোনো সমস্যাকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিতে ওস্তাদ। বদহজম, পেট ফাঁপা এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো জটিল রোগের আদর্শ সমাধান আমড়া। তাছাড়া নিয়মিত আমড়া খেলে হজম প্রক্রিয়া স্বাভাবিক থাকে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

ক্যান্সার প্রতিরোধে আমড়ার ভূমিকা

দেহে থাকা ক্যান্সার কোষগুলো যেন বাড়তে না পারে এবং এগুলো জমাট বেধে মরণব্যাধি ক্যান্সারে রূপ না নেয় এ জন্য আমড়ার লড়াই সর্বক্ষণ চলতে থাকে। আমড়ার ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যান্সারের কোষগুলোর বৃদ্ধি প্রতিহত করে। এতে করে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। নিয়মিত আমড়া খেলে ক্যান্সার হওয়ার শঙ্কা থাকে না বললেই চলে।

sheikh mujib 2020