advertisement
আপনি দেখছেন

করোনা ভাইরাস আতঙ্কে জড়সড়ো পুরো বিশ্ব। সামান্য জ্বর-সর্দিতেই ভয় পেয়ে যাচ্ছে মানুষ। ভাবছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে গেলাম কি না। যদিও করোনার প্রাথমিক লক্ষণ জ্বর-সর্দি দিয়েই শুরু হয়, তার মানে এই নয় যে, জ্বর-কাশি কিংবা মাথা ব্যথা হলেই করোনা হয়েছে। ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে সাধারণ সর্দি-জ্বর-কাশি হয়ে থাকে। এ জন্য আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

corona virus

ভারতের বিখ্যাত ডাক্তার দেবী শেঠী বলেছেন, করোনার সাধারণ লক্ষণগুলো দেখা দেওয়ার ৮ থেকে ৯ দিনের মাথায় করোনা ভালো হয়ে যেত পারে। যদি এ সময়ের মধ্যে করোনা ঠিক না হয়, তাহলে একে স্বাভাবিক অসুস্থতা বলা যাবে না। সঙ্গে সঙ্গে করোনার উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে হবে।

দেবী শেঠী বলেন, যদি কারও সর্দি বা জ্বর থাকে, তাহলে প্রথমে নিজেকে আইসোলেট রেখে লক্ষণ ভালো করে পর্যবেক্ষণ করতে হবে। এ অবস্থা সম্পর্কে তিনি উল্লেখ করেছেন-

১. প্রথম দিন শুধু ক্লান্তি আসবে।

২. তৃতীয় দিন হালকা জ্বর অনুভব হবে, সঙ্গে কাশি ও গলায় সমস্যা দেখা দেবে।

৩. পঞ্চম দিন পর্যন্ত মাথাব্যথা। পেটের সমস্যাও হতে পারে।

৪. ষষ্ঠ বা সপ্তম দিনে শরীরে ব্যথা বাড়বে এবং মাথা যন্ত্রণা কমতে থাকবে। তবে ডায়রিয়ার লক্ষণ দেখা দিতে পারে। পেটের সমস্যা থেকে যাবে। এবার খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

৫. অষ্টম ও নবম দিনে সব লক্ষণই চলে যাবে। তবে সর্দির প্রভাব বাড়তে থাকে। এর অর্থ আপনার প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়েছে এবং আপনার করোনা আশঙ্কার প্রয়োজন নেই। এমন সময় আপনার করোনা পরীক্ষা করানোর দরকার নেই। কারণ আপনার শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। তবে মনে রাখতে হবে, যদি অষ্টম বা নবম দিনে আপনার শরীর আরও খারাপ হয়, তাহলে অবশ্যই করোনা হেল্পলাইনে ফোন করে পরীক্ষা করাতে হবে।