advertisement
আপনি দেখছেন

গ্রীষ্মকালে উত্তর গোলার্ধের উচ্চ তাপমাত্রা নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে পারবে না বলে দাবি করেছেন প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। সম্প্রতি সায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদনে এমনটাই দাবি করেছেন তারা।

corona tempercherউচ্চ তাপমাত্রায় করোনা কমবে না, দাবি গবেষকদের

বিজ্ঞানীরা বলছেন, আবহাওয়ার সঙ্গে কোভিড-১৯ এর সম্পর্ক খুবই সামান্য। যদি কার্যকর পদক্ষেপ না নেয়া হয়, তাহলে আর্দ্র আবহাওয়াতেও ব্যাপক হারে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিতে পারে। এমনকি গ্রীষ্মকালের তীব্র গরম আবহাওয়াও মহামারির সংক্রমণ রুখতে সক্ষম নয়।

এ বিষয়ে প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক র‌্যাশেল বাকের বলেন, করোনাভাইরাসের মতো রোগ সাধারণত শীতকালেই সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত হয়। তারপরও এই সংক্রমণ কতটা মারাত্মক হবে তা নির্ভর করে একটি জনগোষ্ঠীর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ওপর। তাছাড়া ব্রাজিল, ইকুয়েডর, অস্ট্রেলিয়ার মতো গ্রীষ্মপ্রধান দেশের গরম আবহাওয়াও কিন্তু মহামারি ঠেকাতে পারেনি।

corona

এক্ষেত্রে ভ্যাকসিন ছাড়া করোনা রোধ করা সম্ভব নাও হতে পারে জানিয়ে গবেষণা পত্রটির সহ-লেখক অধ্যাপক ব্রায়ান গ্রেনফেল বলেন, আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে, ঋতুভিত্তিক ভাইরাসের সঙ্গে কোভিড-১৯ এর মিল রয়েছে। যদি এমনটা হয়, তাহলে এটি স্থায়ী শীতকালীন ভাইরাসে পরিণত হতে যাচ্ছে বলে ধরে নেয়া যায়।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী মাহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের সঙ্গে গত কয়েক মাসের আবহাওয়ার সম্পর্ক বিচার করে বেশকিছু গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে।  যেখানে বেশিরভাগ গবেষণাতেই বলা হয়েছে, তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের গতি ধীর হয়ে যায়।

তবে সবগুলো গবেষণারই মাত্র প্রাথমিক পর্যায়ের ফলাফল ঘোষণা হয়েছে। ভাইরাসটির সঙ্গে আবহাওয়ার সম্পর্ক যে প্রকৃত অর্থে কী, তা এখনো শতভাগ নিশ্চিত হতে পারেননি কেউ। তাই বলে গবেষণাগুলোর ফল একেবারে বাতিল করে দেয়া যাচ্ছে না।