advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে লকডাউনে আছে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এই পরিস্থিতিতে মানুষের মধ্যে বিভিন্ন মানসিক যন্ত্রণা ও হতাশা দেখা দিতে শুরু করবে। তবে নতুন এক গবেষণা বলছে, নিয়মিত ইয়োগা করলে এইসব মানসিক সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

yoga symbolic pictureপ্রতীকী ছবি

গবেষণাটি করেছেন ইউনিভার্সিটি অব সাউথ অস্ট্রেলিয়ার একদল গবেষক। তাদের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করেছে ফেডারেল ইউনিভার্সিটি অব স্যান্তা মারিয়া, ইউএনএসডব্লিউ সিডনি, কিংস কলেজ লন্ডন এবং ওয়েস্টার্ন সিডনি ইউনিভার্সিটির গবেষকরা।

ফক্স নিউজ বলছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর এটিই প্রথম গবেষণা যা এতো বৃহৎ আকারে করা হয়েছে। ছয়টি দেশের ১৮০টি গবেষণা পর্যালোচনা করা হয়েছে। সেইসঙ্গে এক হাজার ৮০ জন মানুষের ওপর পরিস্থতির প্রভাব বিবেচনা করা হয়।

university of south australiaইউনিভার্সিটি অব সাউথ অস্ট্রেলিয়া

প্রাপ্ত তথ্য পর্যালোচনা করে গবেষকরা দেখতে পান, ভাইরাসের কারণে যে পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে তাতে অনেকেরই মানসিক পরিস্থিতির ক্ষতি হয়েছে। হতাশায় ডুবে গেছেন অনেকে।

এর সমধানে তারা জানতে পারেন, ইয়োগায় অনেকাংশ মানুষের মানসিক পরিস্থিতির উন্নতি হয় এবং সৃষ্ট হতাশা দূর করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে যোগ-ব্যায়ামের ইয়োগা সবচেয়ে কার্যকরী প্রমাণিত হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, নড়াচড়া করা যায় কিংবা যোগ-ব্যায়ামের ইয়োগা করলে শরীর অন্যান্য কাজের থেকে ৫০ শতাংশ বেশি কার্যকর থাকে। ইয়োগার বিশেষ ভঙ্গির জন্যই এমনটি হয়ে থাকে।

গবেষণা দলের প্রধান ইউনিভার্সিটি অব সাউথ অস্ট্রেলিয়ার পি এইচ ডি প্রত্যাশী জ্যাকিনটা ব্রিন্সলে বলেন, সেলফ আইসোলেশন হোক বা হোম কোয়ারেন্টাইন, মানুষ এখন এসবের কারণে গৃহবন্দী। বাড়িতে থেকেই তাদের কাজ করতে হচ্ছে। প্রত্যক্ষাভাবে বন্ধু বা প্রিয়জনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারছে না। যার ফলে মানুষ একাকীত্ব বোধ করছে। যার দরুন তৈরি হচ্ছে হতাশা। যোগ ব্যায়াম এইসব অনুভূতি দূর করার সবচেয়ে কার্যকরী উপায় বলে জানা গেছে। এতে মনোভাব ও স্বাস্থ্য দুটোই লাভবান হয়।

তিনি বলেন, যোগ ব্যায়াম সংক্রান্ত ইয়োগা হতাশা দূর করতে সক্ষম। যারা লকডাউনের কারণে নানা মানসিক সমস্যা ও হতাশায় ডুবে আছে তারা এতে লাভবান হয়েছে।