advertisement
আপনি দেখছেন

গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র করোনাভাইরাস পরীক্ষায় যে র‌্যাপিড টেস্ট কিট বানিয়েছে, তার নেতৃত্বে ছিলেন বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল। অণুজীববিজ্ঞানী হিসেবে ড. বিজনের পরিচয় শুধু দেশেই নয়, সারা বিশ্বে। ২০০২ সালে তিনি ডেঙ্গুর কুইক টেস্ট পদ্ধতি আবিষ্কার করেছিলেন, যা সিঙ্গাপুরে তার নামে পেটেন্ট করা আছে। এই অণুজীববিজ্ঞানী করোনা প্রতিরোধে কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছেন, যা ঘরে বসেই পালন করা সম্ভব।

dr bijonঅণুজীববিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল

১। ভিটামিন সি’র কোনো বিকল্প নেই। দিনে অন্তত ৫০০ এমজি ভিটামিন সি খেতে হবে। আমলকি, কাঁচা আমসহ অনেক ভিটামিন সি এখন সহজে পাওয়া যাওয়ার কথা। যদি তাও সম্ভব না হয় তাহলে প্রতিদিন দুটি করে খেতে হবে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ জিঙ্ক ট্যাবলেট।

২। করোনা হোক কিংবা না হোক, উপসর্গ থাকুক কিংবা না থাকুক- করোনার এই কালে সবাইকেই গরম পানি দিয়ে গার্গল করা উচিত। করোনা ধরা পড়লে কিংবা উপসর্গ দেখা দিলে এটা করতে হবে সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়ে। লবঙ্গ, আদা ও একটা গোলমরিচ মিশ্রিত ধোঁয়া ওঠা রং চা খেতে হবে দিনে ৩-৪ বার। এর বাইরে নাকে-মুখে গরম পানির ভাপ দিতে হবে।

vitamin cখেতে হবে ভিটামিন সি

৩। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে অনেকের পেটে সমস্যা দেখা দেয়। সেক্ষেত্রে এক চামচ হলুদের গুড়া ও নিমপাতার রস পানির সঙ্গে মিশিয়ে সকাল এবং রাতে খেতে হবে।

৪। বারবার সাবান দিয়ে ভালোভাবে হাত ধুতে হবে। বাধ্য হয়ে আমাদেরকে অনেক সময় বাইরে যেতে হয়, সেক্ষেত্রে বাসায় ফেরার পর অবশ্যই সাবান দিয়ে গোসল করতে হবে। গায়ে থাকা পোশাক অবশ্যই ধুয়ে দিতে হবে। বাজার থেকে সবজি বা অন্য কিছু আনলে অনেকক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রেখে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।