advertisement
আপনি দেখছেন

শত প্রচেষ্টা সত্ত্বেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানো যাচ্ছে না। সব ধরনের সতর্কতা অবলম্বনের পরও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকে। কিছু বিশেষজ্ঞ তো বলেই দিয়েছেন, এই ভাইরাস কাউকে ছাড়বে না। একে একে সবাইকে সংক্রমিত করবে। যাই হোক, করোনার মূল টার্গেট হলো ফুসফুস। আর এই ফুসফুস মারাত্মকভাবে আক্রান্ত হলেই তাকে বাঁচানো কঠিন হয়ে যায়। তাই যেকোনো মূল্যে ফুসফুস ঠিক রাখতে হবে। যাদের ফুসফুস ভালো তারা আক্রান্ত হলেও সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। 

3 healthy food

কিন্তু যাদের ফুসফুস-ঘটিত কোনো রোগ আগে থেকেই আছে, কিংবা ফুসফুসের কার্যক্ষমতা কম তাদের জন্য বেশি ঝুঁকি বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। 

ফুসফুস শক্তিশালী করার জন্য কিছু খাবার তালিকা দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। যে খাবারগুলো খেলে ফুসফুস শক্তিশালী থাকবে। ফলে করোনা ভাইরাসের বিপদ অনেকটাই কাটিয়ে উঠার আশা করা যায়। আসুন জেনে নেই খাবারগুলো সম্পর্কে।

পেঁয়াজ-রসুন

পেঁয়াজ-রসুনে রয়েছে বিস্ময়কর স্বাস্থ্য উপকারিতা। পেঁয়াজ-রসুন শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। এ ছাড়া ফুসফুসের যেকোনো অসুখে পেঁয়াজ-রসুন আদর্শ ওষুধ হিসেবে কাজ করে। গবেষণায় দেখা গেছে, ধূমপানের কারণে যাদে ফুসফুসে সমস্যা দেখা দিয়েছে, তারা যদি নিয়মিত রসুন খান তবে ফুসফুসের অসুখ সেরে যাবে অল্প কয়েক মাসের মধ্যেই। 
 
কাঁচা মরিচ

অনেকেই খাবারের সঙ্গে কাঁচা মরিচ খেতে পছন্দ করেন। কাঁচা মরিচে আছে প্রচুর ভিটামিন সি। কাঁচা মরিচ খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে । কাঁচা মরিচের আরেকটি বড় উপকারিতা হলো, এটি ফুসফুসের কার্যক্ষমতা দ্রুত বাড়িয়ে দেয়।

আদা

আদায় আছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এজেন্ট, যা শরীরের রোগ জীবাণুকে মেরে ফেলে। আদার রস হার্টের জন্য ভালো। তাছাড়া নিয়মিত আদা খেলে ফুসফুস, গলা এবং কিডনির অসুখ সেরে যায়।

মৌসুমি ফল ও সবজি

ফুসফুস শক্তিশালী করতে বিষেজ্ঞরা মৌসুমী ফল এবং শাক-সবজি খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। গবেষকরা বলেন, মানুষের দেহের রোগ-বালাই সারানোর অন্যতম সেরা ওষুধ হলো সিজনাল শাক-সবজি ও ফল। ফলের মধ্যে আপেল, পেয়ারা, শশা, সফেদা, বাতাবি লেবু এবং শাক-সবজির মধ্যে গাজর, কুমড়ো, পুই শাক ফুসফুসের জন্য অত্যন্ত উপকারী। 

sheikh mujib 2020