advertisement
আপনি দেখছেন

আধুনিক প্রযুক্তি আমাদের জীবনকে যতটা সহজ করেছে, ঠিক ততটাই করেছে ঝুঁকিপূর্ণ। মোবাইল-ল্যাপটপ এবং গ্যাস সিলিন্ডার এসব প্রযুক্তির ব্যবহার আমাদের জন্য যেমন আশীর্বাদ তেমনি কারণে-অকারণে বিস্ফোরণ ঘটে হয়ে উঠতে পারে অভিশাপ। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের একটি মসজিদে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ বিস্ফোরণ তার জ্বলন্ত প্রমাণ। অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে গেলে তাৎক্ষণিক কী করবেন, কী করবেন না আসুন জেনে নিই এ সম্পর্কে।

burn hand

১. পুড়ে যাওয়া অংশে প্রচুর পরিমাণে পানি ঢালুন।

২. ভুলেও বরফ, ঠাণ্ডা পানি, অথবা কোন ধরনের ক্রিম লাগাবেন না।

৩. পুড়ে যাওয়া ব্যক্তির গায়ে থাকা কাপড়-চোপড় এবং গয়না যথাসম্ভব দ্রুত খুলে ফেলুন। শিশুদের পরনে ডায়াপার থাকলে তাও খুলে ফেলতে হবে।

৪. যদি পুড়ে যাওয়া স্থানে কোনো গয়না, পিন কিংবা কাপড় লেপ্টে থাকে অথবা দেবে যায় তাহলে তা খোলা বা ছাড়ানোর চেষ্টা করবেন না। এতে করে রোগী অনেক কষ্ট পাবে এবং ক্ষতির পরিমাণ আরো বেড়ে যাবে।

৫. প্রচুর পরিমাণে পানি ঢালার কারণে রোগীর শরীর শীতল হয়ে যেতে পারে। তাই যে অংশ পুড়ে গেছে ওই অংশ খোলা রেখে শরীরের সুস্থ অংশ কম্বল দিয়ে জড়িয়ে নেয়া যেতে পারে।

hand burn

৬. যত দ্রুত সম্ভব দগ্ধ ব্যক্তিকে হাসপাতলে নিতে হবে। পুড়ে যাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রোগীকে হাসপাতালে নিতে পারলে রোগীর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা বেড়ে যায় পঞ্চাশ ভাগ বেশি।

৭. পোড়া স্থানে লবণ ডিমের সাদা অংশ কিংবা টুথপেস্ট লাগাবেন না।

৮. রোগীকে যথাসম্ভব তরল খাবার দিন। বিশেষ করে ডাবের পানি পোড়া রোগীদের জন্য প্রাকৃতিক ওষুধ হিসেবে কাজ করে।

sheikh mujib 2020