advertisement
আপনি দেখছেন

অনেক কারণেই মাথাব্যথা হতে পারে। দৃষ্টিস্বল্পতা, মস্তিষ্কের টিউমার অথবা সর্দি-জ্বর মাথাব্যথার সাধারণ কারণ হিসেবে ধরা হয়। তবে মাইগ্রেনের কারণেও ইদানিং অনেকে মাথাব্যথায় ভোগেন। সবচেয়ে যন্ত্রণাদায়ক মাথাব্যথার তালিকায় মাইগ্রেনজনিত মাথাব্যথাকে এগিয়ে রেখেছেন চিকিৎসকরা।

head pain

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালের ক্লিনিক্যাল নিউরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডাক্তার এম এস জহিরুল হক চৌধুরী বলেন, মাইগ্রেনজনিত মাথাব্যাথার পেছনে দৈনন্দিন জীবনের আচার এবং অভ্যাসের যোগসূত্র রয়েছে। কিছু অভ্যাস বাদ দিলে এবং কিছু অভ্যাস গড়ে তুলতে পারলে যন্ত্রণাদায়ক মাইগ্রেনের ব্যথা থেকে সহজেই রেহাই পাওয়া সম্ভব।

মাইগ্রেনের ব্যথা থেকে বাঁচতে যে অভ্যাসগুলো বাদ দিতে হবে

১. অনিয়মিত এবং অপরিমিত ঘুম।

২. বেশি বা কম আলোয় কাজ করা।

৩. দীর্ঘ সময় টিভি বা কম্পিউটারের সামনে বসে থাকা।

৪. সেলফোন বা ল্যাপটপে মাত্রাতিরিক্ত ব্রাইটনেস ব্যবহার করা।

৫. কড়া রোদ এবং তীব্র ঠাণ্ডায় বেশি সময় অবস্থান করা।

tips for avoiding summer migraine

যে ধরনের খাদ্যাভ্যাস মাইগ্রেনের ব্যথা সারিয়ে তোলে

১. ম্যাগনেসিয়ামসমৃদ্ধ ঢেঁকিছাঁটা চালের ভাত।

২. আলু ও বার্লি।

৩. বিভিন্ন ফল- বিশেষ করে খেজুর ও ডুমুর মাইগ্রেনের ব্যথা দ্রুত কমিয়ে দেয়।

৪. সবুজ শাকসবজি, ভিটামিন-ডি ও ক্যালসিয়াম দীর্ঘমেয়াদী মাইগ্রেনের সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়।

৫. নিয়মিত আদার রস পানির সঙ্গে মিশিয়ে খেলে মাইগ্রেনের ব্যথা কমে যায়।

মাইগ্রেনের ব্যথা শুরু হলে যা করবেন

১. বেশি বেশি পানি পান করুন।

২. পুরোপুরি বিশ্রামে থাকুন।

৩. ঠাণ্ডা রুমাল মাথায় জড়িয়ে রাখলে সাময়িক আরাম পাওয়া যাবে।

৪. বরফভর্তি বালতি বা মগে হাত ডুবিয়ে রাখলে ব্যথা কমে আসবে।

sheikh mujib 2020