advertisement
আপনি পড়ছেন

দক্ষিণ আফ্রিকাসহ ৬টি দেশে করোনার নতুন একটি ভ্যারিয়েন্ট বা ধরন শনাক্ত করা হয়েছে। এটির নাম B.1.1.529, যা ভাইরাসটির প্রতিরোধক টিকাকে পরাজিত করতে সক্ষম বলে মনে করা হচ্ছে। নতুন ভ্যারিয়েন্টটি দ্রুত ছড়াতে পারে বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ ট্রান্সপোর্ট সেক্রেটারি গ্রান্ট শ্যাপস।

new variant of coronaকরোনার নতুন ধরন, প্রতীকী ছবি

যে ৬টি দেশে ভ্যারিয়েন্টটি শনাক্ত হয়েছে, সেগুলো হলো- দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া, লেসোথো, বতসোয়ানা, এসওয়াতিনি ও জিম্বাবুয়ে। এসব দেশকে সরকারি ভ্রমণ তালিকায় লাল তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাজ্য। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে জনসাধারণকে সচেতন করার কথা বলেছেন দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, টিকা বা সংক্রমণের ফলে গড়ে ওঠা সক্ষমতা তথা প্রতিরোধ ক্ষমতা এড়াতে পারে B.1.1.529।

ব্রিটেনের ইন্ডিপেডেন্ট পত্রিকা জানায়, ব্রিটিশ হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সি, ইউকেএইচএসএর প্রধান নির্বাহী জেনি হ্যারিস বলেন, এখন পর্যন্ত পাওয়া সবচেয়ে বিপজ্জনক ভ্যারিয়েন্ট এটি। এর সংক্রমণ সক্ষমতা, তীব্রতা ও টিকা সংবেদনশীলতা নিয়ে জরুরি গবেষণা চলছে।

new variant of corona 1

করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্টটি ডেল্টার চেয়েও ‘বেশি সংক্রমণযোগ্য’ হতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ স্বাস্থ্য সচিব সাজিদ জাভিদ। এটি দেশটিতে প্রয়োগ করা টিকাগুলোর ওপর কার্যকর না হওয়ার প্রভাব ফেলার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

যুক্তরাজ্যের ট্রান্সপোর্ট সেক্রেটারি গ্রান্ট শ্যাপস বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া নতুন ভ্যারিয়েন্ট প্রতিরোধে সবার আগে সুরক্ষা দরকার। তিনি স্কাই নিউজকে বলেন, সময় নষ্ট করার সময় নেই, দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে। ব্রিটেনে প্রবেশের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করা জরুরি হয়ে পড়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে শনাক্ত হওয়া করোনার সবচেয়ে বিপজ্জনক ভ্যারিয়েন্ট হিসেবে বিবেচনা করা হতো ডেল্টা বা ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টকে। এটি চলমান মহামারিকে দ্রুত ও ব্যাপকতর করেছে বলে মনে করেন বিশেজ্ঞরা।