advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনার চিকিৎসায় খাওয়ার ওষুধ হিসেবে ‘প্যাক্সোভির’-এর জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশের ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। এটি বাজারে আনছে দেশীয় ওষুধ কোম্পানি এসকায়েফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। ওষুধ অনুমোদনের বিষয়টি আজ বৃহস্পতিবার নিশ্চিত করেছেন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

paxovir coronaএসকায়েফের ‘প্যাক্সোভির’, ফাইল ছবি

জানা গেছে, করোনার চিকিৎসায় জরুরি ব্যবহারের জন্য ‘নিরম্যাট্রেলভির’ ও ‘রিটোনাভির’ ট্যাবলেট অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, এফডিএ জানিয়েছে, এই ওষুধ খেতে পারবে ১২ বছরের শিশুরাও।

নিরম্যাট্রেলভির ও রিটোনাভির সঙ্গে মিলিয়ে ‘প্যাক্সোভির’ নামে করোনা প্রতিরোধের ট্যাবলেট বাজারে আনছে এসকায়েফ। প্রতিষ্ঠানটি দুই দেশ ও একটি সংস্থার অত্যাধুনিক সুবিধায় এই ওষুধ উৎপাদন করবে বলে জানানো হয়েছে। সেগুলো হলো- ব্রিটেনের নিয়ন্ত্রক সংস্থা, এমএইচআরএ; অস্ট্রেলিয়ার ওষুধ নিয়ন্ত্রক থেরাপিউটিক গুডস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, টিজিএ ও ইউরোপীয় ওষুধ সংস্থার গুড ম্যানুফ্যাকচারিং অনুশীলন প্রাকটিস, জিএমপি।

paxovir corona 1এসকায়েফের ‘প্যাক্সোভির’, ফাইল ছবি

এ বিষয়ে এসকায়েফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও সিমিন রহমান বলেন, বিশ্বের প্রথম জেনেরিক নিরম্যাট্রেলভির-রিটোনাভির সংমিশ্রণে প্যাক্সোভির নিয়ে এসেছি আমরা। এটি বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের জন্য করোনা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখবে।

পুরো পৃথিবী করোনা প্রতিরোধে সফল এই ট্যাবলেটের জন্য অপেক্ষা করছে উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, এই মহামারিতে মানবতার সেবায় এই প্রচেষ্টা নিয়েছেন তারা। এটি অনুমোদন পাওয়ায় এবং মানুষের কাছে পৌঁছানোর পথ উন্মুক্ত হওয়ায় আনন্দ প্রকাশ করছেন।