advertisement
আপনি দেখছেন

পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গিয়ে গত ১৭ মে হেনস্তার শিকার হয়েছেন প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলাম। ঘটনা এতটুকুতেই শেষ হয়নি, ওইদিনই তার বিরুদ্ধে ‘অনুমতি ছাড়া ছবি তোলা ও তথ্য চুরি’র অভিযোগে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়। আজ (২০ মে) দুপুরে তার জামিন শুনানি শেষ হয়েছে।

journalist rozina sent jail

শুনানি শেষ হলেও কোনো আদেশ দেয়নি আদালত। রোজিনা ইসলামের আইনজীবী প্রশান্ত কুমার কর্মকার বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে পরে আদেশ দেওয়া হবে। এটা দু-একদিনের মধ্যেই হতে পারে। 

খবর সংগ্রহ করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে সেখানে রোজিনা ইসলামকে ৫-৬ ঘণ্টা আটকে হেনস্তা করা হয়। এরপর অফিসিয়াল সিক্রেসি অ্যাক্ট-এর অধীনে মামলা করা হয় তার বিরুদ্ধে। বাদী হন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী। হেনস্তার পর উল্টো এমন মামলার ঘটনায় দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

মামলার পরদিন মঙ্গলবার (১৮ মে) রোজিনা ইসলামকে ৫ দিনের রিমান্ডে নিতে পুলিশের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়। তবে সেটা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। অবশেষে পূর্বনির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী আজ মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে।