advertisement
আপনি দেখছেন

ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিয়ে অনেকদিন ধরেই একটা অস্বস্তি ছিল সব মহলে। এর প্রেক্ষিতে করা একটি রিটের শুনানির পর অনিবন্ধিত সব নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। অন্যদিকে দীর্ঘদিন থেকে ধারাবাহিকভাবে বন্ধ থাকায় ১০টি দৈনিক পত্রিকার ডিক্লারেশন (ঘোষণাপত্র) বাতিল করেছে সরকার।

bangladesh high court new 2019হাইকোর্ট

নিউজ পোর্টালের ব্যাপারে হাইকোর্টের দেয়া নির্দেশনা ১ সপ্তাহের মধ্যে বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে। এর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিটিআরসির চেয়ারম্যান ও প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানকে। আজ মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) এ সংক্রান্ত রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া এবং বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

হাইকোর্টে এই রিট দায়ের করেছেন আইনজীবী জারিন রহমান ও রাশিদা চৌধুরী নিলু। তার আগে সংবাদ মাধ্যমগুলোর জন্য নৈতিক নীতিমালা প্রণয়ন চেয়ে সংশ্লিষ্টদের কাছে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেই নোটিশের জবাব না পেয়ে রিটটি দায়ের করা হয়।

information ministryতথ্য মন্ত্রণালয়

নির্দেশনার পাশাপাশি হাইকোর্ট মন্তব্য করেছে, সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে নৈতিক নীতিমালা প্রনয়ণ করা জরুরি হয়ে উঠেছে। এটি করতে হবে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলকে। দেশে হাজার হাজার অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল চালু থাকার পরও বিটিআরসি কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এসব পোর্টালের রেজিষ্ট্রেশন করা জরুরি।

অন্যদিকে আজ মঙ্গলবার সরকারের পক্ষ থেকে ১০টি দৈনিক পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিল করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এগুলো প্রকাশিত না হওয়ায় চুক্তিপত্রের শর্ত ভঙ্গ হয়েছে বলে জানানো হয়। এর আগে তথ্যমন্ত্রী এই গণমাধ্যমগুলোকে ‘ভুতুড়ে পত্রিকা’ বলে অবিহিত করে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। আজ তার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হলো।

ডিক্লারেশন বাতিল হওয়া দৈনিক পত্রিকাগুলো হলো- ঢাকা প্রকাশ, জাতির কণ্ঠ, গণ আওয়াজ, দৈনিক জনসেবা, কিষাণ, এই দেশ এই দিন, পূর্ব আলো, সময়ের পাতা, রিপোর্টার এবং ইংরেজি দৈনিক দি ফাইনান্সিয়াল ডেইলি।