advertisement
আপনি দেখছেন

আধুনিক প্রযুক্তির স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট এখন মানুষের জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। যেনো এক মুহূর্তও কাটতে পারে না মানুষ। তাইতো স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটের ব্যাটারি পুরিয়ে যাওয়া মাত্রই সেগুলো যেখানে-সেখানে চার্জ দিতে বসে যান ব্যবহারকারীরা। কিন্তু পাবলিক প্লেসে গণ ইউএসবি পোর্ট দিয়ে চার্জ দিলে হ্যাক হতে পারে যে কারো ফোন বা ট্যাবলেট।

phone charge in public place

জানা যায়, পাবলিক প্লেসে গণ ইউএসবি পোর্ট দিয়ে মোবাইল বা ট্যাবলেট চার্জ দিলে হ্যাকিংয়ের শিকার হতে পারে সেটি। এই পদ্ধতিকে হ্যাকাররা 'জুস জ্যাকিং' বলে থাকে। বিশেষ করে এয়ারপোর্ট, রেলওয়ে স্টেশন, বাসস্টপ কিংবা ক্যাফের মতো জায়গায় বসানো ইউএসবি চার্জিং পয়েন্টে দিয়ে কেউ স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট চার্জ দিলে হ্যাকাররা সেগুলোতে ম্যালওয়্যার ঢুকিয়ে দেয়। যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীর পুরো ডিভাইসটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় হ্যাকাররা এবং হাতিয়ে নেয় প্রয়োজনীয় তথ্য বা ডাটা।

প্রযুক্তিবিদদের মতে, স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট ব্যবহারের মাধ্যমে সারাবিশ্ব ব্যবহারকারীর হাতের মুঠোয় থাকে, কিন্তু আবার হ্যাকিংয়ের শিকার হলে ব্যবহারকারীর সকল ডাটা চলে যায় অন্যের হাতে। হ্যাকাররা 'জুস জ্যাকিংয়ের' মাধ্যমে ব্যবহারকারীর যাবতীয় তথ্য বা ডাটা সংগ্রহ করতে পারে। যেমন- ব্যবহারকারী কার সঙ্গে কথা বলছে, কী কথা বলছে, কোথায় যাচ্ছে, কী করছে। শুধু তথ্য বা ডাটা সংগ্রহ নয়, হ্যাকাররা ভাইরাসের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর ডিভাইসের ক্যামেরা, মাইক্রোফোন এমনকি জিপিএসও নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ডিভাইসটি দিয়ে অন্য কাউকে ফোনও করতে পারে তারা।

malware virus

বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মূলত ২০১১ সালে ব্যবহার শুরু হয় 'জুস জ্যাকিংয়ের'। পরবর্তীতে ২০১৬ সালে এ বিষয়ে সতর্কতা জারি করে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ পর্যায়ের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা এফবিআই। এরপর ২০১৯ সালের নভেম্বর হ্যাকিংর হাত থেকে বাঁচতে মানুষকে পাবলিক প্লেসে গণ ইউএসবি চার্জার দিয়ে স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট চার্জ দেওয়া থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেয় লস অ্যাঞ্জেলস ডিস্ট্রিক্টের অ্যাটর্নির অফিস।

এ বিষয়ে মার্কিন প্রযুক্তি বিষয়ক পরামর্শ প্রতিষ্ঠান ওওডিএ ২০১৮ সালে এক প্রতিবেদনে জানায়, সাইবার নিরাপত্তা হুমকির মধ্যে সবচেয়ে কম গুরুত্ব পায় 'জুস জ্যাকিং'। সাইবার নিরাপত্তা সংস্থা ক্যাস্পারস্কাই ল্যাবের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে সারাবিশ্বে ১১ কোটি ৬৫ লাখ মোবাইল ফোন ম্যালওয়্যারের আক্রমণের শিকার হয়েছে। যে সংখ্যাটি ২০১৭ সালে ছিল ৬ কোটি ৬০ লাখ।

এ ধরনের হ্যাকিংয়ের হাত থেকে বাঁচার উপায়:

'জুস জ্যাকিংয়ের' হাত থেকে বাঁচার সবচেয়ে সহজ উপায় হলো নিজের স্মাটফোন বা ট্যাবলেটটি বাসা থেকে পরিপূর্ণ চার্জ দিয়ে বের হওয়া। তারপরও যদি চার্জ শেষ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাহলে পাওয়ার ব্যাংক সঙ্গে রাখা এবং সেটি দিয়ে নিজের ডিভাইসটি চার্জ দেওয়া। গণ ইউএসবি পোর্ট দিয়ে চার্জ না দিয়ে সরাসরি চার্জার দিয়েও চার্জ দেওয়া যেতে পারে।