advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর সবাই হ্যান্ড স্যানিটাইজার কিনে পরিষ্কার রাখছেন নিজের হাত। পড়ছেন মাস্ক। কিন্তু আপনার মোবাইলটি পরিষ্কার রাখছেন কি? হয়তো না। আপনার মোবাইলে কী পরিমাণ ভাইরাসের বসবাস তা চিন্তাও করতে পারবেন না। গবেষকরা বলছেন, ভাইরাস ছড়ানোয় বড় একটি ভূমিকা রাখে মোবাইল। সম্প্রতি ডিস্কাউটের এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

disinfecting phone

গবেষণা মতে, গড়পড়তায় একজন মানুষ দৈনিক দুই হাজার ৬০০ বার তার মোবাইলটি স্পর্শ করে। মোবাইলের প্রতি বর্গ ইঞ্চিতে প্রায় ২৫ হাজার ১২৭টি ভাইরাস থাকে। এ ভাইরাস হয়তো আমাদের দেহে খুব একটা প্রভাব ফেলে না। তবে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোবাইলের সংস্পর্শে এলে এ অবস্থা ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে।

মোবাইলের প্রতি বর্গ ইঞ্চিতে যে পরিমাণ ভাইরাস থাকে তা বাথরুমের থেকেও বেশি। গবেষণা বলছে, করোনাভাইরাস প্লাস্টিক ও স্টিলের পাতের ওপর দুই থেকে তিন দিন জীবিত থাকতে পারে। মোবাইলে প্লাস্টিক ও স্টিলের পাত ব্যবহার হয়ে থাকে, যার কারণে মোবাইলের মাধ্যমে ভাইরাসটি খুব সহজেই মানবদেহে প্রবেশ করতে পারে।

disinfecting phone01

তাই গবেষকরা হাত পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি মোবাইলটিও পরিষ্কার রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন। কিন্তু মোবাইল এমন একটি যন্ত্র যা সাধারণ উপায়ে পরিষ্কার করা সম্ভব হয় না। আপনি চাইলেই আপনার মোবাইলটি কোনোকিছুতে ডুবিয়ে পরিষ্কার করতে পারবেন না। কোনো দ্রবণ দিয়ে মোবাইল পরিষ্কার করতেও বারণ করেছেন গবেষকরা। সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে মোবাইলটি বন্ধ করে এর ব্যাটারি খুলে অ্যালকোহল প্যাড দিয়ে ভালো করে মুছে ফেলা। তাহলেই আপনার মোবাইলটি ভাইরাস থেকে মুক্ত থাকবে।

তাই করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থেকে নিজেকে রক্ষায় আপনার মোবাইলটিও পরিষ্কার রাখুন। সেইসঙ্গে এড়িয়ে চলুন জনসমাগম। হ্যান্ড স্যানিটাইজার কাছে না থাকলে প্রতি ৩০ মিনিট পর পর সাবান দিয়ে ভালো করে হাত ধুয়ে নিন। নাক ও মুখে হাত দেয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখুন।