advertisement
আপনি দেখছেন

স্পেস-এক্স ও গাড়ি নির্মাতা টেসলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইলন মাস্ক বলেছিলেন করোনা ভাইরাস তেমন কিছু নয়। আতঙ্কিত না হলেই এই ভাইরাসকে দমন করা যাবে। কিন্তু বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। ইলন মাস্কও পড়ছিলেন কঠোর সমালোচনার মুখে। এই পরিস্থিতিতে ইলন মাস্ক এক রকম বাধ্য হলেন টেসলার একটি কারখানা বন্ধ করে দিতে।

elon musk had to stop a plant of tesla

বিশ্বের বেশির ভাগ বড় বড় প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মীদের বাসা থেকে কাজ করার অনুমতি দিয়েছে। টেসলার কিছু কর্মীকেও এই সুবিধা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পুরো কারখানা তো আর বাসায় বসে চালু রাখা সম্ভব নয়, এ কারণে ক্যালিফোর্নিয়ায় টেসলার একটি কারখানা চালুই ছিলো। তা আর সম্ভব হচ্ছে না। জানা গেছে ২৩ মার্চ থেকে কারখানাটি বন্ধ থাকবে।

ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যালামেডা কাউন্টিতে টেসলার এই কারখানা অবস্থিত। এখানে আরো আগেই সবাইকে যার যার বাসভবনে স্থির হয়ে থাকতে বলা হয়েছে। এরপরও টেসলার কারখানাটি চালু রেখেছিলেন ইলন মাস্ক। কিন্তু সেটা আর সম্ভব হলো না।

অ্যালামেডা কর্তৃপক্ষ বলেছিলো, অতিপ্রয়োজনীয় ব্যবসা ছাড়া সব কিছু বন্ধ রাখা হবে। টেসলার গাড়ী উৎপাদন যেহেতু ‘অতিপ্রয়োজনীয়’ বলে বিবেচিত নয়, সেহেতু তাদের কারখানা বন্ধ রাখতে হবে। টেসলাকে কেবল কিছু মৌলিক কাজের বাইরে সব বন্ধ রাখতে বলা হয়েছিলো। কর্তৃপক্ষের এমন কড়া অবস্থানের পরই মূলত টেসলা এমন সিদ্ধান্ত নিলো।

এর আগে চীনের সাংহাইয়ে টেসলার আরো একটি কারখানা বন্ধ হয়েছে। এরও মূল কারণ ছিলো করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব। সাংহাইয়ের কারখানাটি আপাতত চালু করা যাচ্ছে না বলে জানা গেছে। কারখানাটিতে চালু হতে আরো বেশ কিছুদিন সময় লাগতে পারে বলে জানা গেছে।