advertisement
আপনি দেখছেন

ব্যবসার জন্য বাংলাদেশে নিবন্ধন নিয়েছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। গতকাল শনিবার (১২ জুন) প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে আবেদন করা হয়। সেই প্রেক্ষিতে যাচাই-বাছাইয়ের পর আজ রোববার ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেট থেকে ব্যবসায় নিবন্ধন নম্বর (বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর, বিআইএন) দেয়া হয়েছে প্রতিষ্ঠানটিকে।

facebook code

এর আগে এই তালিকায় নাম লিখিয়েছে টেক জায়ান্ট গুগল ও অ্যামাজন। এখন থেকে এগুলো দেশের নিবন্ধিত ভ্যাটদাতা প্রতিষ্ঠান। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) থেকে জানানো হয়েছে, এটি একটি মাইলফলক। কারণ এর মধ্য দিয়ে দেশের বাইরে থেকে পরিচালিত কোনো প্রতিষ্ঠান বিআইএন নম্বর পেয়েছে।

তিন প্রতিষ্ঠানের নামে নিবন্ধন নিয়েছে ফেসবুক। সেগুলো হলো- ফেসবুক টেকনোলজিস আয়ারল্যান্ড লিমিটেড, ফেসবুক আয়ারল্যান্ড লিমিটেড এবং ফেসবুক পেমেন্টস ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড। কিছুদিন আগে গুগল নিবন্ধন নিয়েছে এশিয়া-প্যাসিফিক পেটি লিমিটেড নামে এবং অ্যামাজন নিয়েছে অ্যামাজন সার্ভিসেস ইনক নামে।

google amazon

এই নিবন্ধনের ফলে নিয়মানুযায়ী সরকার মোটা অংকের অর্থ আয় করবে প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে। বাংলাদেশ থেকে প্রাপ্ত ব্যবসার ১৫ শতাংশ দিতে হবে সরকারকে। এছাড়া বছর শেষে ব্যবসায়িক লেনদেনের হিসাব জমা দিতে হবে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে।

২০১২ সালের ভ্যাট আইন অনুযায়ী- গুগল, ফেসবুক, ইউটিউবের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোকে দেশে ব্যবসা চালাতে হলে নিবন্ধন করতে হবে এবং অফিস খোলা কিংবা এজেন্ট নিয়োগ দিতে হবে। কিন্তু নানা জটিলতার কারণে এতদিন সেটা সম্ভব হয় ওঠেনি। এবার একে একে সবাই নিবন্ধনের আওতায় আসছে। আশা করা হচ্ছে, দ্রুতই ফেসবুক, গুগল ও অ্যামাজনের পথে হাঁটবে ইউটিউবসহ অন্যরাও।