advertisement
আপনি দেখছেন

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ধনকুবের জেফ বেজোস ‘ভ্রমণস্বর্গ’ খ্যাত প্রশান্ত মহাসাগরের হাওয়াই দ্বীপে বিশাল এক বাড়ি কিনেছেন। দাম ৭ কোটি ৮০ লাখ মার্কিন ডলার বা ৬৭০ কোটি টাকা। জেফ বেজোসের কাছে এই অর্থ হয়তো তেমন কিছুই নয়। সাউথ চায়না মনিং পোস্ট এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে।

jeff bezos buys 78m compound hawaiiহাওয়াই দ্বীপে বিলাসবহুল বাড়ি কিনেছেন জেফ বেজোস

উত্তর আমেরিকার ক্রান্তীয় অঞ্চলে অবস্থিত হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জ রীতিমতো এক ভ্রমণস্বর্গ। মধুচন্দ্রিমা, রোমাঞ্চকর সার্ফিং, গলফ খেলা ও হাইকিংয়ের জন্য বিখ্যাত এই জায়গাটি যুক্তরাষ্ট্রের একটি রাজ্য। প্রশান্ত মহাসাগরের নীল জলরাশির বুক ছুঁয়ে এগিয়ে আসা মৃদুমন্দ বায়ু দ্বীপের পরিবেশকে নাতিশীতোষ্ণ রাখে সারাক্ষণ। আর তাই প্রতি বছর বহুমূল্য খরচ করে অনেকেই ঘুরতে যান এই দ্বীপে।

এই হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের অন্যতম মাউই দ্বীপে বিলাসবহুল একটি বাড়ি কিনেছেন বিশ্বে ই-কমার্স ব্যবসার পথিকৃৎ ও আমাজনের সাবেক প্রধান নির্বাহী বেজোস। বান্ধবী লরেন সানচেজকে সঙ্গে নিয়ে বাড়িটি ক্রয় করেন তিনি। শহুরে ঝঞ্ঝাটমুক্ত প্রাসাদতুল্য বাড়িটি ১৪ একর জমির ওপর। তিন পাশ সবুজে ঘেরা।

আর সামনের দিকে যত দূর চোখ যায় নীল সাগর। বসবাসের জন্য মূল অংশ মোট ৪ হাজার ৫০০ বর্গফুটের। রান্নাঘর খোলা আকাশের নিচে। চাইলেই রান্না করতে করতে উপভোগ করা যাবে সাগরের সৌন্দর্য। অতিথিদের জন্য গেস্টহাউসও একেবারে ছোট নয়, ১ হাজার ৭০০ বর্গফুট। রয়েছে আরও কয়েকটি ছোট ছোট ভবন। অবকাশযাপনের মধ্যে গা ভেজানোর জন্য রয়েছে ৭০০ বর্গফুটের একটি গোল সুইমিং পুল।

বেজোসের কেনা বাড়িটির মূল মালিকানা ছিল যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডোভিত্তিক জ্বালানি ব্যবসায়ী ডগ শাৎজের। ব্যবসায়ের অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে ১৯৯৬ সালে বাড়িটি কিনেছিলেন তিনি। সে সময় খরচ পড়েছিল ৪২ লাখ ডলার। ১৯৯৯ সালে এসে শাৎজ ও তার স্ত্রী পুরো বাড়ির মালিকানা নিজেদের নামে করে নেন।

এরপর মোটা অঙ্কের অর্থ খরচা করে বাড়িটি নিজেদের মতো করে সাজিয়ে নেন তারা। বেজোসের সঙ্গে টিভি উপস্থাপিকা লরেন সানচেজের প্রেমের গল্প সামনে আসে ২০১৯ সালে। সানচেজ আদতে বেজোসের বন্ধুর স্ত্রী। পরকীয়ার এই সম্পর্কের জেরেই স্ত্রী ম্যাকেঞ্জি স্কটের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় বেজোসের।