advertisement
আপনি পড়ছেন

দেশের অন্যতম মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন, রবি আজিয়াটা ও বাংলালিংককে পাঁচ কোটি টাকা করে মোট ১৫ কোটি টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। মন্ত্রীসহ অনেকের নম্বর অন্যের কাছে বিক্রি করে দেয়া এবং বায়োমেট্রিক্স ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে সিম নিবন্ধনের নির্দেশ লঙ্ঘনের অভিযোগে এই জরিমানা করা হয়েছে।

gp b link robi btrc

ইতোমধ্যেই বিটিআরসি থেকে তিন মোবাইল ফোন অপারেটরকে পৃথক পৃথক চিঠিতে ওই অর্থদণ্ডের নোটিস পাঠানো হয়েছে।

গত ৪ মার্চ অনুষ্ঠিত বিটিআরসি'র ২২৪তম সভায়ই এই তিন অপারেটরকে জরিমানা করার সিদ্ধান্ত হয়েছিলো। কিন্তু জরিমানার পরিমাণ নির্ধারণ না হওয়ায় নোটিস পাঠাতে এতো সময় লাগলো।

নোটিসে মোবাইল অপারেটরগুলোকে গ্রাহকদের ডাটাবেজ ব্যবহারে আরও সতর্ক ও যত্নবান হওয়ার পরামর্শ দিয়ে কোনভাবেই যেনো একজনের নাম-পরিচয় ব্যবহার করে অন্য কেউ সিম ব্যবহার করতে না পারে সে ব্যাপারে কঠিন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, একজনের সিম অন্য কেউ তুলে ফেলা- এই সমস্যার ভুক্তভোগী ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক নিজে। এছাড়া শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. শহিদুল ইসলামও এই সমস্যার মুখোমুখী হয়েছেন।

তাঁদের ‘প্রিমিয়াম’ মোবাইল ফোন নম্বর অন্য গ্রাহক ভুয়া পরিচয়, নাম-ঠিকানা দিয়ে তুলে ফেলার ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে বিটিআরসি অপারেটরগুলোর ব্যাখ্যা চাইলেও তারা কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি। এই অনিয়মের জন্য শুধুমাত্র সেলস এজেন্টকে দায়ী করেই নিজেদের দায়িত্ব সেরেছে সংশ্লিষ্ট অপারেটর।

সবকিছু নিয়েই বিটিআরসি'র বক্তব্য হচ্ছে , সরকারের নির্দেশনা লঙ্ঘন করে অপারেটরগুলো এমন কিছু করছে, যা রাষ্ট্র ও জননিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ। অপারেটরদের কর্মকাণ্ডে অনেক গ্রাহকরা পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।