advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিল্প ও পোশাক-কারখানা। এমন অবস্থায় শ্রমিক-কর্মচারীরা যেন বিপাকে না পড়েন সেজন্য তাদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে সরকার। সেই টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দেয়া হবে। আর তা উঠাতে প্রতি হাজারে মাত্র চার টাকা ফি কাটা হবে।

mobile banking in bangladeshক্যাশ আউটে শ্রমিকের খরচ কমানো হয়েছে

আজ বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেম ডিপার্টমেন্ট। সেখানে বলা হয়, এই বেতন উঠানোর ক্ষেত্রে মোবাইল কোম্পানিগুলো প্রতি হাজারে আট টাকা করে চার্জ ফি কেটে রাখতে পারবে। এর মধ্যে চার টাকা প্ররিশোধ করবে ঋণ প্রদানকারী ব্যাংক। বাকি চার টাকা শ্রমিকদের কাছ থেকে কাটা হবে।

তফসিলি ব্যাংক ও মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারদের উদ্দেশে বলা হয়, সম্প্রতি রপ্তানিমুখী শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য সবাইকে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস অ্যাকাউন্ট খোলার নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এক্ষেত্রে ক্যাশ আউট করতে ফি আদায়ে শুধু কস্ট রিকভারি বা কোনো ক্ষেত্রে সাবসিডি প্রদানের জন্য অপারেটরদের (নগদসহ) অনুরোধ করা হলো।

কস্ট রিকভারি ০.৮ শতাংশ, অর্থাৎ হাজারে আট টাকার বেশি চার্জ আদায় করা যাবে না। এই আট টাকার মধ্যে অপারেটরদের নিজেদের কমিশন থেকে চার টাকা দেবে ঋণ প্রদানকারী ব্যাংক। আর বাকি চার টাকা পরিশোধ করবে শ্রমিক।

উল্লেখ্য, প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী প্রতি হাজারে ১৮ থেকে ২০ টাকা চার্জ কেটে নেয় মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) এজেন্টরা। শ্রমিকদের এ খরচ বহন করা কঠিন। তাই তাদের স্বার্থ্য বিবেচনায় এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।