advertisement
আপনি দেখছেন

অধিনায়কত্ব নিয়ে পড়ে আছেন একের পর এক সমালোচনায়। ব্যাটিংটাও ঠিক তার মতো হচ্ছিলো না। সব মিলিয়ে মুশফিকুর রহিম ছিলেন অসীম চাপে। এতো চাপ থেকে মুক্তি পেতে যা করা দরকার, তাই করলেন তিনি। দারুণ এক সেঞ্চুরি করে উড়িয়ে দিলেন সব চাপ।

mushfiq after hitting ton against south africa as first bangladeshi

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলা আগের ১৭ ম্যাচে একটাও সেঞ্চুরি নেই বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের। সবচেয়ে বড় রান ছিলো ৯০; দুই দলের সর্বশেষ সিরিজে তা করেছিলেন সৌম্য সরকার। এবার সৌম্যকে ছাড়িয়ে গিয়ে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরি তুলে নিলেন মুশফিক। সেঞ্চুরি করার পথে মুশফিক খেলেন ১০৮ বল। চার মারেন ১০টি আর ছয় মারেন দুটি।

এটি মুশফিকের পঞ্চম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। আগের সেঞ্চুরিগুলো ছিলো জিম্বাবুয়ে, ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার সেঞ্চুরি আছে দুটি।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তার এই সেঞ্চুরিটি বাংলাদেশকে দিচ্ছে টেস্টের ব্যর্থতা ভুলে ঘুরে দাঁড়ানোর আশা। টেস্টে পরপর দুই ম্যাচে প্রোটিয়াদের কাছে নাজেহাল হয়েছেন মুশফিকরা। ফলে ওই ব্যর্থতা ভুলে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেতে একটা জয়ের জন্য মরিয়া হয়ে আছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের আশা পূরণের পথে টনিকের কাজ করতে পারে মুশফিকের সেঞ্চুরি। তার সেঞ্চুরিতে ভর করে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগের সর্বোচ্চ ২৫২ রান পেরিয়ে যাওয়ার পথে দারুণভাবে এগিয়েছে বাংলাদেশ। ২০০৭ সালে প্রভিডেন্সে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ২৫১ রান এসেছিলো। এরপর গত ১০ বছরে ওই রান আর পেরিয়ে যেতে পারেনি বাংলাদেশ।