advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 10 মিনিট আগে

উইকেট পাননি, তারপরও মাশরাফি বিন মর্তুজার বোলিংটা আজ বড় কাজে লেগেছে আবাহনী লিমিটেডের। আটোসাটো বোলিংয়ে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে ইনিংসের শুরুতে আটকে রেখেছিলেন মাশরাফি। যাতে শেষ পর্যন্ত বড় স্কোর গড়া হয়নি শাইনপুকুরের। এই সুবিধা কাজে লাগিয়ে ম্যাচটা সহজেই জিতে নিয়েছে আবাহনী।

mashrafe bin mortaza abahani

ফতুল্লায় শাইনপুকুরকে আজ ৫ উইকেটে হারিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে আবাহনীর এটা টানা চতুর্থ জয়।

খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২০৩ রানের বেশি তুলতে পারেননি শাইনপুকুরের ব্যাটসম্যানরা। আবাহনীর বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে শাইনপুকুরের অধিনায়ক আফিফ হোসেন সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেছেন।

আবাহনী অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন তিন উইকেট নিয়েছেন। দুটি করে উইকেট নিয়েছেন রুবেল হোসেন ও নাজমুল ইসলাম অপু। মাশরাফি উইকেট না পেলেও ৫ ওভার বোলিং করে খরচ করেছেন মাত্র ১৪ রান। অর্থাৎ ওভারপ্রতি মাত্র ২.৮০ রান দিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। মাশরাফির ৫ ওভারের ৩০ বলের মধ্যে ২৪ বলই ছিল ডট।

পরে জবাব দিতে নেমে নিউজিল্যান্ডের আতঙ্ক কাটিয়ে মাঠে ফেরা সৌম্য সরকারকে সাথে নিয়ে আবাহনীকে ৬২ রানের উদ্বোধনী জুটি উপহার দেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান ওয়াসিম জাফর। সৌম্য ৩৩ করে ফেরার পর দ্বিতীয় উইকেটে নাজমুল হাসান শান্তকে সাথে নিয়ে ৮৫ রানের জুটি গড়ে আবাহনীর জয়ের রাস্তা পরিষ্কার করেন তিনি।

১০৬ বল খেলে ৭৬ রান করে ফিরেছেন জাফর। পরে জয় নিশ্চিত করার কাজটি সহজে সেরেছেন সাব্বির রহমান (১৩*) ও মুনির শাহরিয়ার (২১*)। শান্তর ব্যাট থেকে আসে ৪২ রান। যাতে ৪৮.৩ ওভারে পাঁচ উইকেট হারিয়ে জয়ের জন্য ২০৫ রান তুলে নেয় আবাহনী।

sheikh mujib 2020