advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 20 মিনিট আগে

ঘন্টায় নিয়মিত ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বোলিং করতে পারতেন। সেটাও সেই ২০০৯ সালের ঘটনা। ওই সময়ে এতো দ্রুতগতির বোলারের দেখা মিলেছে কালেভদ্রেই। আইপিএল খেলতে এসেই তারকা বনে গিযেছিলে কামরান খান নামের ভারতীয় ওই পেসার। অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি বোলার শেন ওয়ার্ন কামরানকে দেখিয়ে বলেছিলেন, ভবিষ্যতে ভারতের বড় সম্পদ হতে যাচ্ছে এই ছেলে। ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস, সেই কামরান এখন কৃষক!

ipl star now farmers

যেই আইপিএলে তিনি তারকা বনে গিয়েছিলেন। তাকে কেড়ে নিয়েছে আবার সেই আইপিএলই। ২০১১ সালে ওয়ার্নের রাজস্থান রয়্যালস থেকে পাড়ি জমিয়েছিলেন পুনে ওয়ারিয়ার্সে। ঝামেলাটা লাগল সেখানে গিয়েই।

বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন উঠে কামরানের। বোলিং শুধরে আবারও ক্রিকেটে ফিরেছিলেন কিন্তু বোলিংয়ের সেই ধার সাথে করে নিয়ে ফিরতে পারেননি দ্রুতগতির এই বোলার। দল থেকে বাদ পড়েন। কিছুদিন স্থানীয় ক্লাবের হয়ে খেলে ভালো করতে পারছিলেন না বলে সেখান থেকেও বাদ পড়েছেন।

ক্রিকেটে সুবিধা করতে পারছেন না বলে ভাইদের সঙ্গে কৃষিকাজে নেমে পড়েছেন কামরান। ভাইদের সঙ্গে এখন নিয়মিত কৃষি কাজ করেন। জীবনাটা অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে সেটা কামরান নিজেই জানালেন।

অনেকে হাসি ঠাট্টা করেন। অনুশীলন করার সুযোগ মিলে সকাল আর সন্ধ্যায়। তামাশার ভয়ে সেভাবে কারো সাথে মেশেনও না কামরান! পুরোটা কামরানের মুখেই শুনুন, ‘ক্রিকেটার থেকে কৃষক হয়েছি বলে অনেকেই ঠাট্টা তামাশা করে। কিন্তু আজকাল এসবে পাত্তা দেই না। সকাল ও সন্ধ্যা বেলায় অনুশীলন করি। বাকি সময় খেতে কাজ করি। খুব একটা কারো সাথে মেশাও হয় না।’

sheikh mujib 2020