advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

কাগিসো রাবাদা ইয়র্কার করতে গিয়ে ওভারের প্রথম বলটি করে ফেললেন লো ফুলটস। আন্দ্রে রাসেল সেই সুযোগ আর মিস করেননি। গতি ব্যবহার করে চার আদায় করে নেন। সুপার ওভারে ১১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে প্রথম বলেই চার পেয়ে গেলে কে আর ভেবেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স ম্যাচটা হারতে পারে!

kagiso rabada vs andre russell

কিন্তু শেষ পর্যন্ত হেরেছে কলকাতাই। প্রথম বলেই চার আদায় করলেও সব মিলিয়ে সুপার ওভারে মাত্র ৬ রান তুলতে পেরেছেন রাসেল, দিনেশ কার্তিক, রবিন উথাপ্পারা। নাটকীয়তা শেষে ম্যাচের শেষ হাসি হাসে দিল্লি ক্যাপিটাল। এর আগে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে সুপার ওভারে ১০ রান তোলেন দিল্লির ব্যাটসম্যানরা।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলার স্টেডিয়ামে ১৮৫ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে পৃথ্বি শ'র দুর্দান্ত এক ইনিংসে জয়ের পথেই ছিল দিল্লি। শেষ ৯ বলে জয়ের জন্য দিল্লির প্রয়োজন ছিল ১২ রান, হাতে ছয় উইকেট। কিন্তু পৃথ্বি হঠাৎ আউট হয়ে গেলে এই সহজ সমীকরণটি মেলাতে পারেননি দিল্লির ব্যাটসম্যানরা। শেষ দিকে তালগোল পাকিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে দিল্লির স্কোরও গিয়ে থামে সেই ১৮৫ রানে, অর্থাৎ টাই। পৃথ্বি শ ৫৫ বলে ১২টি চার ৩টি ছক্কায় ৯৯ রান করে ফিরেছেন।

অবশ্য কলকাতার স্কোরটাও ছিল আশ্চর্যে ভরা। ৬১ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ফেলা দলটি যে শেষ পর্যন্ত ১৮৫ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর পাবে সেটাই বা কে ভেবেছিলেন! কলকাতার পক্ষে এই কঠিন কাজটি করে দেখিয়েছেন আন্দ্রে রাসেল ও দিনেশ কার্তিক। কালও ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছিলেন রাসেল। সাতে নেমে মাত্র ২৮ বলে ৬২ রানের বিধ্বংসী এক ইনিংস খেলেছেন তিনি। রাসেলের ইনিংসে চারের চার ছিল ৪টি, ছক্কা ৬টি। আর দিনেশ কার্তিক করেন ৩৬ বলে ৫০ রান।

sheikh mujib 2020