advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দুই দলের লড়াই। ম্যাচটা জমবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। কিন্তু চেন্নাই সুপার কিংসের সামনেই দাঁড়াতেই পারল না কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। আজ কলকাতাকে স্রেফ খড়কুটোর মতো উড়িয়ে দিয়েছে চেন্নাই।

ms dhoni completes a stumping

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে প্রস্তর যুগের ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ওভারে নয় উইকেটে ১০৮ রান করেছে কলকাতা। জবাব দিতে নেমে ১৬ বল ও সাত উইকেট হাতে রেখেই দারুণ জয় তুলে নেয় চেন্নাই (১১১/৩)। ছয় ম্যাচের পাঁচটিতে জিতে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। চার জয় নিয়ে দুই ও তিনে আছে যথাক্রমে কেকেআর ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

চেন্নাইর আগুনে বোলিংয়ের বিপরীতে শুরুতেই ধসে পড়ে কলকাতার টপ অর্ডার। নয় রানেই শেষ তাদের তিন উইকেট। ধাক্কাটা আর সামলে উঠতে পারেনি অতিথি দল। ৭৯ রানে নবম ও শেষ উইকেটের পতন হয় কলকাতার। শেষ অবধি আন্দ্রে রাসেলের ব্যাটিং দৃঢ়তায় কোনোরকম অল আউট হওয়ার লজ্জা এড়িয়েছে কেকেআর।

চেন্নাইর বোলারদের বিরুদ্ধে প্রায় একাই লড়াই করেছেন রাসেল। ৪৪ বলে ৫০ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। ইনিংসে পাঁচটি চার ও তিনটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার। অধিনায়ক ডিনেশ কার্তিক ১৯ এবং রবিন উথাপ্পা ১১ রানে আউট হয়েছেন। কলকাতার বাকি আট ব্যাটসম্যানই যেতে পারেননি দুই অংকে।

তিন উইকেট তুলে নিয়ে কেকেআরকে ধসিয়ে দিয়েছেন দ্বীপক চাহার। চার ওভারে কুড়ি রান দিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন তিনি। চার ওভারে ১৫ রান খরচায় দুই উইকেট নিয়েছেন হরভজন সিং। ইমরান তাহির ২১ রান খরচায় নিয়েছেন দুই উইকেট। চার ওভারে ১৭ রান দেওয়া রবিন্দ্র জাদেজাও শিকার করেছেন এক উইকেট।

বোলাররা 'অল্প'তে কলকাতাকে বেঁধে ফেলে চেন্নাইর জয়ের কাজটা সহজ করে দিয়েছেন। পরে ব্যাটসম্যানরা কেবল জয়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরেছেন। তবে মন্থর গতিতে ব্যাট করেছেন চেন্নাইর ব্যাটসম্যানরাও। ৪৫ বলে তিনটি চারে ৪৩ রানে অজেয় ছিলেন ফ্যাফ ডু প্লেসি। ৩১ বলে ২১ রানে আউট হয়েছেন আম্বাতি রায়ডু। এ ছাড়া সুরেশ রায়না ১৪ ও শেষ ওয়াটসন ১৭ রান করেছেন।

বুধবারের খেলা:
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স-কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব, রাত ৮.৩০টা;

কলকাতা-চেন্নাই পরের ম্যাচ:
রাজস্থান রয়্যালস-চেন্নাই সুপার কিংস; ১১ এপ্রিল, রাত ৮.৩০টা;
কলকাতা নাইট রাইডার্স-দিল্লি ক্যাপিটালস, ১২ এপ্রিল রাত ৮.৩০টা;

sheikh mujib 2020