advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, বিশ্বকাপের দল অনেকটা নির্বাচন করাই আছে। দু’একটি জায়গা নিয়ে শুধু একটু-আধটু চিন্তা আছে। টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও বলেছিলেন, বিশ্বকাপে কারা কারা খেলবেন সেটা প্রায় সবারই জানা। বিকল্প তো আর নেই সেভাবে।

mosaddek nasir

নির্বাচকরাও আকাড়ে ইঙ্গিতে এমন কথা জানিয়েছিলেন। কিন্তু এই মুহূর্তে মনে হচ্ছে, বিশ্বকাপের দল নির্বাচন নিয়ে আর একবার ভাবতে হবে বিসিবির নির্বাচকদের! মোসাদ্দেক হোসেনের দুর্দান্ত ফর্ম তাদের হয়তো ভাবতে বাধ্য করবে। আভাস পাওয়া যাচ্ছিল, মিডল অর্ডারে সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সাথে মোহাম্মদ মিঠুন ও সাব্বির রহমানের উপর আস্থা রাখবে বাংলাদেশ। কিন্তু এখন হয়তো মোসাদ্দেক হোসেনকে নিয়েও ভাবতে হবে।

চোখের ইনজুরির কারণে দীর্ঘদিন মাঠের বাইরে ছিলেন মোসাদ্দেক। চোট কাটিয়ে ফিরে সেভাবে পারফর্ম করতে পারেননি। তবে চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলছেন দুর্দান্ত। তারকাবহুল আবাহনী লিমিটেডের নেতৃত্বভার সামলাচ্ছেন। পাশাপাশি উজ্জল পারফরর্ম দেখিয়ে যাচ্ছেন। ডিপিএলে নিয়মিত রান পেয়েছেন মিডল অর্ডার এই ব্যাটসম্যান। আজ দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিও তুলে নিলেন।

শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে মাত্র ১৪ রানে চার উইকেট হারিয়ে রীতিমতো ধুঁকছিল আবাহনী। সেখান থেকে একপ্রান্ত আগলে রেখে দলকে দারুণ একটা সংগ্রহ এনে দিয়েছেন মোসাদ্দেক। ছয়ে ব্যাট করতে নেমে ১৩৯ বল খেলে ১০১ রান করে অপরাজিত ছিলেন। তরুণ অলরাউন্ডারের ইনিংসে চারের মার ছিল ৬টি, ছক্কা ৩টি। তার দারুণ ইনিংসে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে নয় উইকেট হারিয়ে ২১১ রান তুলেছে আবাহনী।

মোসাদ্দেকের দিনে জ্বলে উঠেছেন মিডল অর্ডারের আরেক তারকা ব্যাটসম্যান নাসির হোসেন। শেখ জামালের হয়ে দশ ওভার বোলিং করে দুই মেডেনে মাত্র ২৪ রান খরচায় তিন উইকেট তুলে নিয়েছেন নাসির। পরে ৫৬ বলে ৪৫ রান করে শেখ জামালের জয়ে বড় ভুমিকা রেখেছেন। ম্যাচটা তিন উইকেটে জিতেছে শেখ জামাল। ৪৮.৫ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে জয়ের জন্য ২১৫ রান তুলে ফেলে দলটি। শেখ জামালের হয়ে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন মজুমদার। ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন নাসির হোসেন।