advertisement
আপনি দেখছেন

১২ বলে দরকার ৩০ রান। শেষ ওভারে সমীকরণ নেমে আসে ১৮ রানে! স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচটা ঝুঁকে ছিল রাজস্থান রয়্যালসের দিকে। এমন কঠিন সমীকরণ মিলিয়ে ফেলল চেন্নাই সুপার কিংস। বেন স্টোকসের মহানাটকীয় সেই ওভারে ধোনি, জাদেজা, স্যান্টনার মিলে নিলেন ২১! থ্রিলার ম্যাচটা চেন্নাই জিতল চার উইকেটে।

dhoni stops the game to confront the umpires over a revoked no ball call

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত কুড়ি ওভারে সাত উইকেটে ১৫১ রানের লড়াকু পুঁজি সংগ্রহ পায় রাজস্থান রয়্যালস। জবাব দিতে নেমে ২৪ রানে চার উইকেট হারায় চেন্নাই। সেখান থেকে আম্বাতি রায়ডু ও ধোনির দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরির সুবাদে নাটকীয় জয় তুলে নেয় চেন্নাই সুপার কিংস।

ঠিক যেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনালের দু:স্বপ্নটাই আরেকবার দেখলেন স্টোকস। সেদিন শেষ ওভারে ১৮ রান আগলে রাখতে পারেননি ইংলিশ পেসার। নাটকীয় সেই ওভারে স্টোকসকে চারটি ছক্কা মেরে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে শিরোপা জিতিয়েছিলেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট।

কালও স্টোকসের সামনে ১৮ রান আগলে রাখার চ্যালেঞ্জ ছিল। কিন্তু এদিনও ব্যর্থ হলেন তিনি। পার্থক্য হচ্ছে, সেদিন ওভারটা শেষ করতে হয়নি স্টোকসকে। কাল ৮টি বল করতে হলো তাকে! তন্মধ্যে দুটি আবার নো বল। একটিতে থাকল বিতর্কের ছায়া। শেষ ওভারের প্রথম ও শেষ বলে জাদেজা ও স্যান্টনারের কাছে ছক্কা হজম করতে হয় স্টোকসকে।

এনিয়ে চার ম্যাচে রান তাড়া করে জিতল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএর) চলতি আসরে সপ্তম ম্যাচে এটা চেন্নাইর ষষ্ঠ জয়। ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকায় যথারীতি শীর্ষে আছে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। আট পয়েন্ট নিয়ে তাদের পেছনে আছে যথাক্রমে কলকাতা নাইট রাইডার্স, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

আগে ব্যাট করতে নামা রাজস্থান রয়্যালসের কেউ ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। দলের প্রায় সবাই আউট হয়েছেন দুই অঙ্ক ছোঁয়ার পর। সর্বোচ্চ ২৬ বলে ২৮ রান করেছেন বেন স্টোকস। ১০ বলে ২৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে বিদায় নিয়েছেন ওপেনার জস বাটলার। এ ছাড়া উল্লেখযোগ্য রান করেছেন আজিঙ্কা রাহানে *(১৪), স্টিভেন স্মিথ (১৫), রাহুল ত্রিপাঠি (১০), স্টিভেন স্মিথ (১৫), রিয়ান পরাগ (১৬), শ্রেয়াস গোপাল (১৯*) ও জোফরা আর্চার (১৩*)।

রাজস্থানের ছুড়ে দেওয়া দেড়শোর্ধ্ব রানের চ্যালেঞ্জের জবাব দিতে নেমে শুরুতেই ধসে পড়ে চেন্নাইয়ের টপ অর্ডার। পরে পঞ্চম উইকেট জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় চেন্নাই। ধোনি-রায়ডু মিলে গড়ে তোলেন ৯৫ রানের ম্যাচ নির্ধারক জুটি। জুটি ভাঙে ৪৭ বলে ৫৭ রানে রায়ডুর বিদায়ে।

তবে শেষ ওভার পর্যন্ত টিকে ছিলেন ধোনি। ৪৩ বলে ৫৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে আউট হয়েছেন চেন্নাই অধিনায়ক। দুজনই ইনিংসে সমান চারটি চার ও তিনটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। তবে ম্যাচ সেরা স্বীকৃতি উঠেছে 'ক্যাপ্টেন কুল' ধোনির হাতে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
রাজস্থান রয়্যালস: ২০ ওভার, ১৫১/৭
চেন্নাই সুপার কিংস: ২০ ওভার, ১৫৫/৬
ফল: চেন্নাই সুপার কিংস চার উইকেটে জয়ী
ম্যাচ সেরা: মহেন্দ্র সিং ধোনি

শুক্রবারের খেলা:
কলকাতা নাইট রাইডার্স-দিল্লি ক্যাপিটালস, রাত ৮.৩০টা

চেন্নাই-রাজস্থানের পরের ম্যাচ:
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স-রাজস্থান রয়্যালস, ১৩ এপ্রিল, বিকেল ৪.৩০টা
কলকাতা নাইট রাইডার্স-চেন্নাই সুপার কিংস, ১৪ এপ্রিল বিকেল ৪.৩০টা