আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 52 মিনিট আগে

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) দারুণ ছন্দে থাকা কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর) হঠাৎই পথ হারিয়েছে। শুক্রবার আবার হেরেছে কলকাতার ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। ডিনেশ কার্তিকের দল এবার হেরেছে ঘরের মাঠ, ইডেন গার্ডেন্সে। আজ তাদের হারিয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস।

dhawan acknowledges the applause as pant looks on

আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভারে সাত উইকেটে ১৭৮ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পায় কলকাতা। জবাব দিতে নেমে সাত বল ও সাত উইকেট হাতে রেখে রাজসিক জয় তুলে নেয় দিল্লি ক্যাপিটালস। দাপুটে এই জয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে টপকে লিগ টেবিলের চারে উঠে এসেছে দিল্লি।

সাত ম্যাচের মধ্যে এনিয়ে চারটিতে জিতল শ্রেয়াস আইয়ারের দল। দিল্লির সমান আট পয়েন্ট থাকা সত্ত্বেও তালিকার পাঁচে নেমে গেছে পাঞ্জাব। তবে হারলেও আট পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি টেবিলের দুইয়ে আছে কলকাতা। তাদের পেছনে আছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থাকা চেন্নাই সুপার কিংস সবার ধরাছোঁয়ার বাইরে আছে।

মুদ্রা নিক্ষেপের লড়াইয়ের বিপরীতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খেয়েছে কলকাতা। স্কোর বোর্ডে কোনো রান জমা পড়ার আগেই হারাতে হয়েছে ওপেনার জো ডেনলিকে। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৬৩ রান করে ধাক্কাটা সামলে নিয়েছেন ওপেনার সুভমান গিল ও রবিন উথাপ্পা।

৩০ বলে ২৮ রানের (চারটি চার, একটি ছক্কা) মন্থর গতির ইনিংস খেলে আউট হয়েছেন উথাপ্পা। ধীর গতিতে উথাপ্পার ব্যাটিং করাটাই শেষ পর্যন্ত কাল হলো কলকাতার। তবে গিল ব্যাট চালিয়েছেন টি-টোয়েন্টি মেজাজেই। ৩৯ বলে ৬৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন তিনি। ইনিংসে সাতটি চার ও দুটি ছক্কা মেরেছেন গিল।

এরপরই শুরু আন্দ্রে রাসেলের তাণ্ডব। ২১ বলে ৪৫ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস খেলেছেন ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার। ইনিংসে চারটি ছক্কার পাশাপাশি তিনটি চার মেরেছেন রাসেল। শেষ দিকে ছয় বলে ১৪ রান করেছেন পিযুষ চাওলা। এ ছাড়া নিশিত রানার ব্যাট থেকে এসেছে ১২ বলে ১১ রান।

১৭৯ রানের কঠিন লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ঝড়ো ব্যাটিং করেন দিল্লির দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও পৃথ্বি শ। অবশ্য ঝড়ের স্থায়িত্ব বেশিক্ষণ ছিল না। সাত বলে দুটি ছক্কার সুবাদে ১৪ রান করে বিদায় নিয়েছেন পৃথ্বি। ৫৭ রানে দলের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফিরে যান অধিনায়ক আইয়ার (ছয় বলে ছয়)।

ম্যাচটা জমবে বলে মনে হচ্ছিল। কিন্তু নিখাদ ক্রিকেট সমর্থকদের রোমাঞ্চে জল ঢেলে দেন ধাওয়ান ও ঋষভ প্যান্ট। তৃতীয় উইকেট জুটিতে দুজন মিলে গড়েন ১০৫ রানের বিধ্বংসী জুটি। ম্যাচটা নির্ধারণ হয়ে গেছে তাতেই। ৬৩ বলে ১১টি চার ও দুটি ছক্কায় ৯৭ রানে অপরাজিত ছিলেন ধাওয়ান। যা তার হাতে তুলে দিয়েছে ম্যাচ সেরার স্বীকৃতি। যদিও ম্যাচটা শেষ করে আসতে পারেননি প্যান্ট। ৩১ বলে চারটি চার ও দুটি ছক্কায় ৪৬ রানে আউট হয়েছেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

কলকাতা নাইট রাইডার্স: ২০ ওভার, ১৭৮/৭
দিল্লি ক্যাপিটালস: ১৮.৫ ওভার, ১৮০/৩
ফল: দিল্লি ক্যাপিটালস সাত উইকেটে জয়ী
ম্যাচ সেরা: শিখর ধাওয়ান

শনিবারের ম্যাচ:

মুম্বাই ইন্ডিয়ানস-রাজস্থান রয়্যালস, বিকেল ৪.৩০টা;
কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব-রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু, রাত ৮.৩০টা;

কলকাতা-দিল্লির পরের ম্যাচ (১৪ এপ্রিল):

কলকাতা নাইট রাইডার্স-চেন্নাই সুপার কিংস, বিকেল ৪.৩০টা;
সানরাইজার্স হায়দরাবাদ-দিল্লি ক্যাপিটালস, রাত ৮.৩০টা;