advertisement
আপনি দেখছেন

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ভারতের বিপক্ষে সেভাবে দাঁড়াতেই পারল না বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ইন্দোরের পর কলকাতা টেস্টেও ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। কলকাতা টেস্ট শেষে বিরাট কোহলি বললেন, টেস্ট ক্রিকেটের গুরুত্ব কী তা বুঝতে হবে বাংলাদেশের ক্রিকেটার এবং বোর্ডকে।

virat kohli interacts with the crowd

ইন্দোর টেস্টে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে রান করে ১৫০, দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৩। অপর দিকে ভারত ছয় উইকেট হারিয়ে তোলে ৪৯৩ রান। ইন্দোরে প্রতিরোধের লেশ মাত্র দেখাতে পারেনি বাংলাদেশ। ঠিক একই ঘটনা ঘটেছে ইডেনেও। নিজেদের ইতিহাসের প্রথম দিবারাত্রির টেস্ট খেলতে নেমে মুমিনুল হকের দল প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে ১০৬ রানে, দ্বিতীয় ইনিংসে ১৯৫ রানে। দুই টেস্টেই ইনিংস ব্যবধানে হারা বাংলাদেশের পক্ষে হাফ সেঞ্চুরি পেয়েছেন কেবল মুশফিকুর রহিম।

কোহলি বুঝাতে চাইলেন টেস্ট ক্রিকেটের গুরুত্বটাই বুঝছে না বাংলাদেশের ক্রিকেটার এবং বোর্ড। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘তারা যদি আরও টেস্ট খেলে তবে আরও অভিজ্ঞ হবে। যদি দুই টেস্ট খেলে মাঝে ছয় মাসের বিরতি পড়ে যায় তাহলে আপনি বুঝবেন না চাপ কীভাবে সামলাতে হয় অথবা চাপের মধ্যে কিভাবে খেলতে হয়। দেখুন তাদের স্কিল আছে। তাদের সামর্থ্য আছে বলেই তো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে। তবে আরও ভালো করতে নিয়মিত ম্যাচ (টেস্ট) খেলতে হবে। তাদের খেলোয়াড় ও বোর্ডকে বুঝতে হবে টেস্টের গুরুত্ব কতটা। টেস্টে ভালো করার এটাই একমাত্র উপায়।’

সিরিজে সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালকে পায়নি বাংলাদেশ। সেটাও বাংলাদেশকে ভুগিয়েছে বললেন কোহলি। তিনি বলেন, ‘তারা তাদের দুজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড়কে পায়নি। সাকিব নেই, তামিম নেই। মুশফিক ছিল, মাহমুদউল্লাহ ছিল। কিন্তু দুজন খেলোয়াড়ের ওপর ভরসা করে তো আর দলকে সামনে এগিয়ে নেওয়া যায় না। বাকিরা তরুণ, তাদের আরও অভিজ্ঞ হতে হবে।’

sheikh mujib 2020