advertisement
আপনি দেখছেন

দীর্ঘ দশ বছর পর পাকিস্তানের মাটিতে ফিরেছে আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেট। এই টেস্ট নিয়ে পাকিস্তানিদের আগ্রহের কোনো কমতি ছিল না। কিন্তু সবার রোমাঞ্চে জল ঢেলে দিল বৃষ্টি। পাঁচ দিনের লড়াইয়ে পাকিস্তান কিংবা শ্রীলঙ্কা কেউ-ই ঠিকঠাক প্রথম ইনিংস শেষ করতে পারেনি।

baba and abid gave the substantial

অবধারিতভাবেই তাই অমীমাংসিত থেকে গেলে রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট। আজ পঞ্চম ও শেষ দিনে বৃষ্টির দাপট কমে আসার পর রাজত্ব করেছেন পাকিস্তানের দুই ব্যাটসম্যান আবিদ আলি ও বাবর আজম। দুজনই তুলে নিয়েছেন শতক। তবু অনুমিতভাবেই ড্র হয়েছে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। আগামী ১৯ ডিসেম্বর করাচিতে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে।

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের প্রথম দিন বৃষ্টির দাপট ততটা ছিল না। দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন ভালোই ভুগিয়েছে। চতুর্থ দিন তো একটা বলও মাঠে গড়ায়নি। সেই তুলনায় আজ রোববার কিছুটা স্বস্তি ছিল। শেষ দিনে খেলা হয়েছে ৭৫.১ ওভার। শ্রীলঙ্কা খেলেছে ৫.১ ওভার।

আসলে ধনঞ্জয়া ডি সিলভার শতকের জন্য অপেক্ষা করছিল লঙ্কানরা। ১০২ রানে অজেয় ছিলেন ডি সিলভা। এ ছাড়া বৃষ্টিভেজা টেস্টে অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ৫৯, ওসাদা ফার্নান্দো ৪০, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ৩১, ডিনেশান ডিকভেলা ৩৩ রানে আউট হয়েছে। ১৬ রানে অজেয় ছিলেন দিলরুয়ান পেরেরা।

তাদের ছোটখাটো ইনিংস ও ডি সিলভার শতকের সুবাদে প্রথম ইনিংসে ছয় উইকেটে ৩০৮ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। জবাব দিতে নেমে প্রায় ওয়ানডে মেজাজে ব্যাট করে দুই উইকেটে ২৫২ রান তুলেছে পাকিস্তান। বাবর ১২৪ বলে ১৪টি চারে করেছেন অপরাজিত ১০২ রান। টেস্ট ক্যারিয়ারে এটা তার তৃতীয় সেঞ্চুরি। অধিনায়ক আজহার ৩৬ রানে সাজঘরে ফিরে গেছেন।

অভিষিক্ত ওপেনার আবিদ ১১টি চারের সুবাদে ২০১ বলে অজেয় ছিলেন ১০৯ রানে। তাতেই হলো ইতিহাস। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দুই সংস্করণের অভিষেকেই শতক হাঁকালেন পাকিস্তানি ওপেনার।