advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 39 মিনিট আগে

রাজশাহী রয়্যালসের ইনিংসের ১৮তম ওভার শেষে ৮৬ রানে অপরাজিত ছিলেন শোয়েব মালিক। যেভাবে খেলছিলেন তাতে চলতি বিপিএলের সর্বোচ্চ সংগ্রহটাকে সেঞ্চুরিতে পরিণত করার ভালো সুযোগই ছিল সাবেক পাকিস্তান অধিনায়কের। কিন্তু পারলেন না। পরের ওভারে ফিরেছেন আরেক পাকিস্তানি মোহাম্মদ আমিরের বলে। তবে ফেরার আগে রাজশাহীকে শক্ত একটা সংগ্রহ এনে দিয়ে গেছেন মালিক।

malik rajshai bpl

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে প্রথমে ব্যটিং করে ১৮৯ রানের সংগ্রহ গড়েছে রাজশাহী। চলতি বিপিএলে যা সর্বোচ্চ স্কোরের রেকর্ড। আগের রেকর্ডটি ছিল ঢাকা প্লাটুনের দখলে। ঢাকা পর্বে সিলেট থান্ডার্সের বিপক্ষে চার উইকেটে ১৮২ রান তুলেছিল মাশরাফি বিন মর্তুজার দল।

আজ রাজশাহীর শোয়েব মালিক শেষ পর্যন্ত ৫০ বল খেলে ৮ চার ৪ ছয়ে ৮৭ রান করেছেন। রাজশাহীর বড় সংগ্রহ দারুণ অবদান রবি বোপারারও। পাঁচে নেমে ২৬ বলে ২টি করে চার ছয়ে ৪০ রানে অপরাজিত ছিলেন ইংলিশ অলরাউন্ডার। শেষ দিকে আন্দ্রে রাসেল ৬ বলে করেন ১৩ রান।

টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি পদ্মাপাড়ের দলটির। মোহাম্মদ আমিরের দুর্দান্ত এক বল বুঝে উঠতে না পেরে হযরতুল্লাহ জাজাই ফিরেছেন ১ রান করে। আগের কয়েকটা ম্যাচ দারুণ ব্যাটিং করা লিটন কুমার দাসও খুব বেশিদূর এগুতে পারেননি (১৬ বলে ১৯ রান)।

তবে চতুর্থ উইকেটে শোয়েব মালিক ও রবি বোপারা শুরুর দুঃখটা ভুলিয়ে দিয়েছেন দারুণভাবে। চতুর্থ উইকেটে দুজনের জুটি ছিল ১০৬ রানের। এরপর মালিক ফিরে গেলেও রাসেলকে নিয়ে রাজশাহীকে দারুণভাবে টেনেছেন বোপারা।

চট্টগ্রামের হয়ে দুটি উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ আমির। তবে ২ উইকেট পেলেও ৪ ওভারে ৩৬ রান দিয়েছেন পাকিস্তানি পেসার।

sheikh mujib 2020