advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

অভিষেক টেস্টেই রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়েছিলেন। ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক দুই সংস্করণের অভিষেক ম্যাচেই সেঞ্চুরি করেছিলেন আবিদ আলি। আজ শনিবার আরো একটা কীর্তি গড়লেন ডানহাতি ওপেনার। পাকিস্তানের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে শুরুর দুই টেস্টে শতক হাঁকালেন তিনি।

centurions shan masood and abid ali

আবিদের মতো এদিন শতকের দেখা পেয়েছেন সঙ্গী শান মাসুদও। এই ‍দুজনের ২৭৮ রানের রেকর্ড জুটির ওপর দাঁড়িয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে শ্রীলঙ্কার কাঁধে লিডের পাহাড় চাপিয়ে দিচ্ছে পাকিস্তান। তৃতীয় দিনের খেলা শেষে দুই উইকেটে ৩৯৫ রান করেছে পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে তারা অল আউট হয়েছিল ১৯১ রানে।

করাচি টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে পাকিস্তানের লিড এখন ৩১৫ রান। স্বাগতিক শিবির কোথায় থামে কার্যত সেটাই দেখার। এমন প্রত্যাবর্তনের নায়ক দুই ওপেনার মাসুদ ও আবিদ। সাতটি চার ও তিন ছক্কায় ১৩৫ রানে সাজঘরে ফিরে গেছেন প্রথমজন। মাসুদের আউটেই ভাঙে পাকিস্তানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উদ্বোধনী জুটি। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে এটাই পাকিস্তনের সবচেয়ে বড় জুটি।

আবিদ দ্বিশতকেরও আভাস দিয়েছিলেন। কিন্তু ফিরে গেছেন সম্ভাবনা জাগিয়ে। আউট হয়েছেন ১৭৪ রানে। ফেরার আগে ২১টি চার ও একটি ছক্কার রাজসিক ইনিংসটি সাজিয়ে গেছেন তিনি। পরে দুই ওপেনারের এনে দেওয়া ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে লঙ্কান বোলারদের ওপর ছড়ি ঘোরাচ্ছেন পাকিস্তানের দুই অধিনায়ক আহজার আলি ও বাবর আজম।

আজ ৫৭ রানে বিনা উইকেটে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে পাকিস্তান। দিনভর হাত ঘুরিয়ে লঙ্কানদের সাফল্য বলতে দুই উইকেট। দুটিই নিয়েছেন লাহিরু কুমারা। দিন শেষে ৪০ রানের জুটিতে অজেয় থাকেন আজহার ও বাবর। প্রথমজন ৫৭ এবং দ্বিতীয়জন ২২ রানে অপরাজিত থেকে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবেন।

আউট হওয়ার আগে মাসুদ ও আবিদ ফিরিয়ে এনেছেন দেড় যুগ আগের সময়টা। ১৮ বছরের মধ্যে প্রথমবার এক ইনিংসে সেঞ্চুরি করলেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার। এর আগে ২০০১ সালে সাঈদ আনোয়ার ও তৌফিক ওমর এক টেস্টে শতক হাঁকিয়েছিলেন। সেটাও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে।

sheikh mujib 2020