advertisement
আপনি দেখছেন

১২ বছর আগে এমন একটা তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। ভারতের শীর্ষ চার ব্যাটসম্যানই করেছিলেন সেঞ্চুরি। আজ রোববার যেন এক যুগ আগের পুনরাবৃত্তি হলো। করাচিতে ফিরল ঢাকার মিরপুরের স্মৃতি। এবার বাংলাদেশের জায়গায় শ্রীলঙ্কা; ভারতের বদলে পাকিস্তান।

azhar celebrates his ton with babar

দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তিন অংক ছুঁলেন শান মাসুদ, আবিদ আলি, আজহার আলি ও বাবর আজম। প্রথম দুজন শতক হাঁকিয়েছেন পরশু। শেষের দুজন তাদের পদাঙ্ক অনুকরণ করলেন। এই চতুষ্টয়ের সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় ইনিংসে রানের পাহাড় গড়েছে পাকিস্তান।

প্রথম ইনিংসে বাজে ব্যাটিংয়ের পর পাকিস্তান অল আউট হয়েছিল ১৭১ রানে। সেই ধকলটা দ্বিতীয় ইনিংসে কী দারুণভাবেই না কাটিয়ে উঠল স্বাগতিকরা। এবার তাদের গুটিয়ে দিতে পারেনি শ্রীলঙ্কা। বরং দুদিনে লঙ্কান বোলারদের সবটুকু শুষে নিয়ে ৩ উইকেটে ৫৫৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে পাকিস্তান।

শ্রীলঙ্কার কাঁধে ৪৭৫ রানের বোঝা। এই রানের চাপেই প্রায় শেষ লঙ্কানরা। আজ চতুর্থ দিন শেষে ৭ উইকেটে ২১২ রান করেছে তারা। জয়ের জন্য এখনো তাদের করতে হবে ২৬৪ রান! একশ রানের আগে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ফেল লঙ্কানরা অবশ্য এদিনই গুটিয়ে যেতে পারতো।

সেটা হয়নি ওপেনার ওশাদো ফার্নান্দো ও সাতে নামা নিরোশান ডিকভেলার কারণে। ১৩ চারে ১০২ রানে দিন শেষে অজেয় থাকলেন ফার্নান্দো। প্রায় ওয়ানডে মেজাজে খেলতে গিয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন তার সঙ্গী ডিকভেলা। ষষ্ঠ উইকেটে এই দুজনের ১০৪ রানের জুটিতে অলৌকিক কিছুর স্বপ্ন দেখেছিল লঙ্কানরা।

শেষ বিকেলে জোড়া আঘাত করে তাদের নির্মম বাস্তবতা বুঝিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানি বোলাররা। জয় থেকে তিন উইকেটের দূরত্ব নিয়ে আগামীকাল পঞ্চম ও শেষ দিনের খেলা শুরু করবে স্বাগতিক শিবির। দ্বিতীয় ইনিংসে লঙ্কানদের পতন হওয়া উইকেটের তিনটি নিয়েছেন নাসিন শাহ। বাকি চার উইকেট নিয়েছেন আলাদা চারজন।

এর আগে দিনের প্রথমভাগটা রাঙিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানের দুই সংস্করণের অধিনায়ক আহজার ও বাবর। দুজনই ছুঁলেন তিন অংকের ম্যাজিক ফিগার। ১১৮ রানে আউট হয়েছেন আজহার। ১০০ রানে অজেয় ছিলেন বাবর। তাতেই হলো বিরল এক ইতিহাস। এক ইনিংসে দ্বিতীয়বারের মতো প্রথম চার ব্যাটসম্যানের শতক দেখল টেস্ট ক্রিকেট। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে এমন কীর্তি এবারই প্রথম!

শুরুর চারজনের সেঞ্চুরির প্রথমবারের দৃষ্টান্তটা খুব দূরে নয়। মাত্র এক যুগ আগে। মিরপুর শেরে বাংলা সেটডিয়ামে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে শতক হাঁকিয়েছিলেন ভারতের শুরুর চার ব্যাটসম্যানÑ দিনেশ কার্তিক, ওয়াসিম জাফর, রাহুল দ্রাবিড় ও শচীন টেন্ডুলকার। তবে এক ইনিংসে ৪ ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরির দৃশ্য এনিয়ে একবিংশবার দেখল টেস্ট ক্রিকেট।

এক ইনিংসে পাঁচ ব্যাটসম্যানেরও দুবার শতক হাঁকানোর নজির আছে। যার একটি পাকিস্তানের। সেখানে জড়িয়ে আছে আবার বাংলাদেশের নাম। ২০০১ সালে মুলতান টেস্টে টাইগারদের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের পাঁচ ব্যাটসম্যান শতক হাঁকিয়েছিলেন।