advertisement
আপনি দেখছেন

পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের একাদশে স্কোয়াডে টি-টোয়েন্টি উপযোগী ব্যাটসম্যানের ছড়াছড়ি। লিটন দাস, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, সৌম্য সরকার সবাই দ্রুত রান তুলতে সক্ষম। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে আজ হার্ডহিটার হতে পারলেন না একজনও। ফলাফল বড় স্কোর গড়তে পারেনি প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা বাংলাদেশ।

tamim nayeem at pakistan

লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা বাংলাদেশ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪১ রান তুলেছে। পাঁচ ওপেনার নিয়ে একাদশ সাজানো ব্যাটিং অর্ডার আজ বড্ড এলোমেলো দেখা গেল। সৌম্য সরকার ব্যাটিং করতে নামলেন ছয় নম্বরে। মিডল অর্ডার হিসেবে পরিচিত মোহাম্মদ মিঠুন ব্যাট হাতে নামলেন সাত নম্বরে।

তামিম ইকবালের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন নাঈম শেখ। তিনে লিটন দাস, চারে মাহমুদুল্লাহ, পাঁচে আফিফ হোসেন। একপাশে বাংলাদেশি এলোমেলো ব্যাটিং লাইনআপ অপরদিকে পাকিস্তানিদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং দুই মিলিয়েই বড় স্কোর গড়া হলো না বাংলাদেশের।

১১ ওভারে ওপেনিং জুটিতে ৭১ রান তুলেছেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ নাঈম শেখ। দুই ওপেনারের ধীরগতির ব্যাটিং হয়তো অনেককেই বিরক্ত করেছে, তবে বাংলাদেশ ইনিংসের উজ্জল মুহূর্ত ছিল সেটিই।

ওপেনিং জুটি ভাঙলে পরবর্তী ব্যাটসম্যানরা দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করে গেছেন। পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে সেটা তো পারেনইনি উল্টো নিয়মিত উইকেট হারিয়ে নিজেদের ওপর চাপ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ। ইনিংসে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ স্কোর নাঈম শেখের। ৪১ বলে ৩ চার ২ ছয়ে ৪৩ রান করেন তরুণ ওপেনার। তামিম ইকবাল ৩৪ বলে ৪ চার ১ ছয়ে ৩৯ রান করেন। এছাড়া দুই অঙ্কের কোটা পেরুতে পেরেছেন কেবল মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (১৪ বলে ২০) ও লিটন দাস (১৩ বলে ১২)।

পাকিস্তানের হয়ে একটি করে উইকেট নেন শাহিন শাহ আফ্রিদি, শাদাব খান ও হারিস রউফ।