advertisement
আপনি দেখছেন

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে পিচ যে পুরোপুরি ব্যাটিং সহায়ক ছিলো সেটা দেখলেই আন্দাজ করা যায়। অথচ পাকিস্তানের ইনিংসে ছক্কা হলো না একটিও! বাংলাদেশের ইনিংসে ছিলো ৩টি। দুই দল মিলিয়ে পুরো ম্যাচে চার মেরেছে মাত্র ২৮টি। ব্যাটিং উইকেটে এমন ঘুমপাড়ানি ক্রিকেটের এমন ম্যাচে শেষ হাসি হেসেছে পাকিস্তান। তিনি ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে ৫ উইকেটে জিতে ১-০ তে এগিয়ে গেলো স্বাগতিকরা।

shoaib malik punches off the back foot

লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের ব্যাটিংয়ের সূচনা হয়েছিল খুবই বাজে। দলের সেরা ক্রিকেটার বাবর আজম ফিরে যান ইনিংসের প্রথম বলেই। তিনে নেমে ১৭ রান করে ফিরেছেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ হাফিজ। তবে শোয়েব মালিকের অভিজ্ঞতার সামনে পেরে উঠেনি বাংলাদেশি বোলাররা।

সদ্য শেষ হওয়া বিপিএলে বেশ ভালো খেলেছিলেন শোয়েব। বাংলাদেশি বোলারদের তার চেনাই ছিল। আজ প্রথম টি-টোয়েন্টিতে সেটার পুরো ফয়দা আদায় করলেন শোয়েব। বোলিংয়ে বাংলাদেশি বোলাররাও খুব একটা খারাপ করেননি। তবে শোয়েব এক প্রান্ত আগলে রেখে ধীরে ধীরে পাকিস্তানের জয় নিশ্চিত করেছেন।

৪৫ বলে ৫ চারে ৫৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি। পাকিস্তানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রাহক আহসান আলী। ৩২ বলে ৩৬ করেন তরুণ ওপেনার। বাংলাদেশের শফিউল ইসলাম দুটি এবং মোস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে বাংলাদেশের ১৪১ রানের সংগ্রহে বড় অবদান তরুণ ওপেনার নাঈম শেখ ও তামিম ইকবালের। ওপেনিংয়ে ৭১ রানের জুটি গড়ার পথে ৪১ বলে ৪৩ রান করেন নাঈম। তামিম ৩৪ বলে করেন ৩৯ রান। এছাড়া মাহমুদুল্লাহ ১৯ ও লিটন দাস ১২ রান করেন।