advertisement
আপনি দেখছেন

সাকিব আল হাসান নিষেধাজ্ঞার কারণে দলের বাইরে। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বাদ পড়েছেন টেস্ট দল থেকে। মেহেদি হাসান মিরাজ আছেন অফ ফর্মে। এই অবস্থায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ম্যাচটার একাদশ কিভাবে সাজাবে বাংলাদেশ? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আরও কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে। চূড়ান্ত উত্তর পাওয়া যাবে কাল টসের পর। তবে ম্যাচের আগের দিন আজ একটা ধারণা দিয়ে রাখলেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

bangladesh test team india

বাংলাদেশি স্পিনে বরাবরই ধুঁকেছে জিম্বাবুয়ে। এদিকে, দেশের মাটিতে সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচটা পেসার না নিয়েই খেলেছে বাংলাদেশ। তারপরও প্রধান কোচ জানালেন কাল একাদশ সাজাতে পারেন দুজন পেসার নিয়ে।

ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমরা সম্ভবত দুজন পেসার নিয়ে খেলতে নামছি। স্রেফ একজন পেসার নিয়ে আসলে দলের খুব একটা উপকার হয় না। তিন পেসার খেলাতে পারলে ভালো হতো। যদি এমন একজন থাকতো যে পেস বোলিং করবে এবং সাত নম্বরে ব্যাটিং করবে তাহলে ভালো হতো। কিন্তু আমাদের তেমন কেউ নেই।’

প্রধান কোচ বলেন, ‘আমরা যদি তিন পেসার নিয়ে খেলি তাহলে ব্যাটিং লাইনআপ হালকা হয়ে যায়। কারণ আমাদের দুজন স্পিনার নিতেই হবে। যতদিন সাইফুদ্দিন ফিট না হবে বা এমন কাউকে না পাব যে ১০-১৫ ওভার পেস বোলিং করবে এবং সাতে ব্যাট করবে ততোদিন আমাদের দুজন পেসার নিয়েই নামতে হবে।’

প্রধান কোচের এই কথার প্রেক্ষিতে আন্দাজ করে একাদশ নির্বাচন করাই যায়! ওপেনিংয়ে তামিম ইকবালের সঙ্গে সাইফ হাসানের না থাকার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তিনে নাজমুল হোসেন শান্ত, চারে মুমিনুল হক, পাঁচে মুশফিকুর রহিম। ছয় নম্বরের জন্য মোহাম্মদ মিঠুনকে হয়তো বাদ রাখা হবে না। সাতে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান লিটন দাস।

স্পিনার দুজন নেওয়া হলে তাইজুল ইসলামের সঙ্গে নাঈম হাসানের থাকার সম্ভাবনাই বেশি। সেক্ষেত্রে বেঞ্চে বসে থাকতে হবে মেহেদি হাসান মিরাজকে। পেস আক্রমণে থাকবেন আবু জায়েদ রাহির সঙ্গে ইবাদত হোসেন বা তাসকিন আহমেদ।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন দাস, তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান/মেহেদি হাসান মিরাজ, আবু জায়েদ রাহি ও ইবাদত হোসেন/তাসকিন আহমেদ।